For English Version
বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
হোম

আগামী ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রধান কোচ থাকছেন হাথুরু

Published : Wednesday, 3 July, 2024 at 5:56 PM Count : 757



আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের প্রধান কোচ হিসেবে থাকছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে

মঙ্গলবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে বিসিবির কার্যালয়ে পরিচালনা পর্ষদের সভার পর এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য দেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন
পাপনের কাছে সাংবাদিকরা জানতে চেয়েছিলেন, বিদেশি কোচিং স্টাফদের বিষয়ে। তিনি অল্প কথায় জানিয়ে দিয়েছেন, ‘আগামী বছর ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চন্ডিকা হাথুরুসিংহের মেয়াদ রয়েছে। তার মেয়াদ আর বাড়ানো হবে না। এর মধ্যেই নতুন কোচিং স্টাফ খুঁজতে শুরু করবো আমরা।’

জানা গেছে, প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেসহ কোচিং স্টাফে মোট ৮জন বিদেশি কাজ করছেন।

খারাপ খেললে ক্রিকেটারদের সমালোচনা হবে, এটাই স্বাভাবিক। তবে মাঝেমাঝে ভক্তরা মাত্রাতিরিক্ত সমালোচনা করতে গিয়ে উগ্র হয়ে ওঠেন। ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত আক্রমণ করতেও দ্বিতীয়বার চিন্তা করে দেখেন না। এমন সমর্থকদের জন্য সতর্কবার্তা দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, এই ধরনের আচরণ মেনে নেওয়া হবে না।

পাপন বলেন, ‘ব্যক্তিগত আক্রমণ বলে একটা বিষয় আছে। আক্রমণের একটা নমুনা আছে। দল হেরে গেলে বা খারাপ খেললে মানুষজন রাগ করবে, সমালোচনা করবে এটা স্বভাবিক। তবে তারও একটা সীমা আছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে সেটা সমস্ত সীমা অতিক্রম করে ফেলে। আমরা এটা আর কোনোভাবেই গ্রহণ করবো না।’

আফগানিস্তান ম্যাচে ব্যাটিং নিয়ে পাপন বলেন, ‘আমরা আফগানিস্তানের সাথে যখন রক্ষণাত্মক খেলার কথা, তখন আক্রমণাত্মক খেলেছি। আর যখন আক্রমণাত্মক খেলার কথা তখন রক্ষণাত্মক খেলেছি।’

তবে ওই ম্যাচে কোচ ও অধিনায়কের প্রকৃত লক্ষ্য-পরিকল্পনা কী ছিল, তা না জেনে ঢালাও মন্তব্য করতে নারাজ পাপন।

ব্যাখ্যা করে পাপন বলেন, ‘একবারেই মূল কিছু জিনিস আছে। একটা হচ্ছে কোচের রিপোর্ট। সেটা চাওয়া হয়েছে যেকোনো সময় পেয়ে যাবো। আরেকটা হল, টিম ম্যানেজারের রিপোর্ট। সেটাও আমরা পাইনি। এই দুইটা পাওয়ার পরে আমরা কোচিং স্টাফ ও অধিনায়কের সঙ্গে বসি। কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটারের সঙ্গেও বসি। তো এখন পর্যন্ত এগুলোর একটাও হয়নি। এখন দর্শক হিসেবে আমার যেটা মনে হয়েছে তা বললাম।’

তবে তিনি বলেন , ‘আমি একটা ব্যাপারের উত্তর দিতে পারছি না। সেটা হল আমাদের অধিনায়ক বলেছে ৩ উইকেট পড়ার পর তারা চেষ্টা করেনি। এটা গ্রহণযোগ্য না। কিন্তু আমি যতক্ষণ খেলা দেখেছি ততক্ষণ এমনটা মনে হয়নি। যতক্ষণ পর্যন্ত তাওহিদ হৃদয় ছিল, ততক্ষণ ওরা চেষ্টা করেছে। মাহমুদউল্লাহ ও রিশাদ বোলার রশিদ খানকে ছয় মারতে গিয়ে আউট হয়েছে।’

‘আমরা প্রথম থেকেই বলছি, ওর (অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত) এই কথার সঙ্গে আমরা একমত না। এটা কোনো ভাবেই মেনে নেয়া যায় না। ১২ ওভার পর্যন্ত (আফগানিস্তানের বিপক্ষে) আমাদের লড়াই করা উচিত ছিল। দেখলাম, যখন রক্ষণাত্মক খেলার দরকার ছিল তখন মেরে খেলেছে। আর যখন মেরে খেলার দরকার ছিল তখন রক্ষণাত্মক খেলেছে।’

উপরের বক্তব্যে অধিনায়ক শান্তর বিপক্ষে বললেও পরের অংশেই আবার বাংলাদেশ দলের পক্ষ নিয়েছেন বিসিবি প্রধান।

বিসিবি সভাপতি পাপন বলেন, ‘১২ ওভারে ১১৫ রান টি-টোয়েন্টিতে করা কোনো ব্যাপারই না। এটা আমি মেনে নিচ্ছি। কিন্তু ওই উইকেটে কেউ কি ওই রান করতে পেরেছে? অস্ট্রেলিয়াও তো আফগানিস্তানের কাছে হেরেছে ওই উইকেটে। ওই কন্ডিশনটা সহজ ছিল না। কিন্তু ওরা (বাংলাদেশ ব্যাটাররা) চেষ্টা করেছে।’

পেসার তাসকিন আহমেদ এখন নতুন করে আলোচনায় এসেছেন। ভারতের বিপক্ষে ঘুমের কারণে তিনি খেলতে পারেননি, এমন সংবাদ প্রকাশ হয়েছে। তবে এসব অনেক ইস্যুতে পরিষ্কার করে কিছু বলেননি পাপন।

বোর্ড সভাপতি শুধু বলেন, ‘আমি তাসকিনকে একাদশে না দেখে রাবিদ ইমামকে (বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার) ফোন দিয়েছিলাম। জানতে চেয়েছি, তাসকিন কেন নেই। রাবিদ আমাকে জানালো, সে (তাসকিন) টিম বাস ধরতে পারেনি।’

এই সময় সাংবাদিকদের কেউ একজন পাপনকে প্রশ্ন করে বলেন, ‘আপনারা (বোর্ড) সবসময় বলেন যে, নেক্সট বিশ্বকাপ। এটি আসলে কোন বিশ্বকাপের কথা বলেন?’

এমন প্রশ্নে বিরক্তি প্রকাশ করেন পাপন বলেন, ‘এই যে আপনি কথাটা বললেন। আমরা খেলার আগে বলি যে নেক্সট বিশ্বকাপ। এটা কোথায় পেলেন? এক জায়গায় দেখলাম, আমি নাকি বলছি। আমি জীবনে এই কথা বলিনি। এইগুলো বানান কীভাবে? কে বানায়, আপনারা? আমি বলছি যারা বানায়, তারা বানায় কীভাবে।’

‘যা দিয়ে বানায়, এখন যদি বানানোর পর যদি কেউ প্রশ্ন করেন, আমার কিছু বলার আছে? এমন অবস্থা হচ্ছে কোনটা সত্যি আর কোনটা মিথ্যা, বলা খুব মুশকিল। আমাকে পাঠিয়ে বলে এটা কী সত্যি? আমি কীভাবে বলবো সত্যি।’

পাপন বলেন, ‘একটা জিনিস আপনাদেরকে বলে রাখি। আপনাদের সঙ্গে আমার বহু বছর হয়ে গেছে ইতিমধ্যেই। প্রশ্ন করতে চান, আমি প্রশ্ন করতে না করবো, উত্তর দেবো না; কখনো এরকম ছিল না। ঠিক হোক বা ভুল হোক, আমার যা মনে হয়, আপনাদেরকে বলে এসেছি। কখনো কিছু লুকানোর ব্যাপার না। কিন্তু তার মানে এই না যে, এখন যেগুলো সোশাল মিডিয়াতে চলছে, সেগুলো আমি বলেছি।’

এসআর

« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone : PABX- 0241053001-08; Online: 41053014; Advertisemnet: 41053012
E-mail: info$dailyobserverbd.com, mailobserverbd$gmail.com, news$dailyobserverbd.com, advertisement$dailyobserverbd.com,   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft