For English Version
রবিবার, ২০ জুন, ২০২১, রেজি: নং- ০৬
Advance Search
হোম অনলাইন স্পেশাল

দখল-দূষণে মরতে বসেছে ইছামতি খাল

Published : Sunday, 25 April, 2021 at 7:17 PM Count : 109

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মিরকাদিম পৌরসভার রিকাবীবাজার দিয়ে বয়ে যাওয়া ইছামতি খালটি দখল আর দূষণে মরতে বসেছে। 

স্থানীয়রা বলছেন, ইছামতি খাল দিয়ে এক সময় বড় বড় নৌকা চলতো। চলতো মালবাহী জাহাজ। রিকাবীবাজারের মানুষ গোসলসহ গৃহস্থলী কাজে এই খালের পানি ব্যবহার করতো। বর্তমানে ইছামতি খালটিতে ময়লা ফেলে ভরাট করে স্থাপনা নির্মাণ করার অপচেষ্টা করা হচ্ছে। খালটির দু’পাশে গড়ে ওঠা বাজারের ব্যবসায়ীরা ময়লা ও বর্জ্য ফেলে খালটির পানি নিষ্কাশন বন্ধ করে দিয়েছে। এতে পরিবেশ দূষণসহ দুর্গন্ধে এলাকাবাসী চরম ভোগান্তিতে পড়েছে। 

এই খালটির দু’পাশে প্রতিদিন বাজারের সকল ধরনের ময়লা ফেলে ২০১৫ সালে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিএনপির পরাজিত প্রার্থী পূর্বপাড়ার শামসুর রহমান ও সাহাবুদ্দিন গং দখলে নেমেছেন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।

তারা অবৈধ ভাবে দখল করে সেখানে অট্টালিকা তৈরি করছেন। বর্তমানে খালটির এক তৃতীয়াংশই মাটি ভরাট করে সেখানে টংয়ের দোকান ও ভবন নির্মাণ করছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

অন্যদিকে, ময়লা আবর্জনা ফেলার কারণে খালটি দিয়ে বাজারের পানি নিস্কাশন বন্ধ হওয়ায় ময়লা দুর্গন্ধে কাঠেরপুল দিয়ে এলাকার মানুষ যাতায়াত করতে পারছেন না। দীর্ঘদিনেও বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনের নজরে আসেনি। নিরব রয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষও।

স্থানীয়রা জানান, খালে পানি না থাকায় এখন আর নৌকা চলে না। ১৫ বছর যাবৎ এই খালে পানি নেই। শুধু বর্ষার সময় পানি হয়। বর্তমানে খালটিতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ময়লা থাকায় দুর্গন্ধে খালের উপরে নির্মাণ করা কাঠের পুল দিয়ে চলাচল করতে কষ্ট হয়। দীর্ঘদিনেও এর সমাধান পায়নি পৌরবাসী। 

শহীদুল ইসলাম শাহিন মিরকাদিম পৌরসভার মেয়র থাকাবস্থায় কয়েক বছর আগে খালটি দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযানে নেমে বিভিন্ন স্থাপনা সরিয়ে দেন। বর্তমানে একটি সক্রিয় সিন্ডিকেট ময়লা আবর্জনা ফেলে খালটি ভরাট করে দখলের পাঁয়তারা করছেন।

এ বিষয়ে স্থানীয় আরেক বাসিন্দা শরিকুল বলেন, এই খালে এক সময় সাঁতরে গোসল করতাম, আর এখন এই খালটি দূষণ আর দখলের কারণে পানি নেই। এই খালটি দখলমুক্ত হোক- এটা আমরা চাই।

হাসান ভূইয়া নামে আরেক বাসিন্দা বলেন, খালটির পাশ দিয়ে যাওয়া যায়না। দুর্গন্ধে অতিষ্ট হতে হয়।

তিনি আরও বলেন, খালটি দখলের কারণে পানি না থাকায় খালের ওপর দিয়ে যাওয়া আসার জন্য বাজারের লোকজন তিনটি কাঠের পুল নির্মাণ করেছে। এই খালটিতে আগে থেকেই বিভিন্ন স্থানে তিনটি পাকা সেতুও রয়েছে। 

স্থানীয় পঞ্চায়েত কমিটির যুব বিষয়ক সম্পাদক জালাল উদ্দিন বলেন, আমরাও চাই খালটি দখল মুক্ত হোক, খালের যৌবন ফিরে আসুক। তবে খালটি দখল মুক্ত করতে গিয়ে যেন ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে দিকেও খেয়াল রাখা উচিত।

মিরকাদিম পৌর মেয়র আব্দুস সালাম বলেন, রিকাবীবাজার দিয়ে বয়ে যাওয়া ইছামতি খালটি দখল করে স্থাপনা নির্মাণ ও বাজারের ময়লা খালে ফেলে মাটি ভরাট করে খাল দখলের বিষয়টি আমি শুনেছি। একটি সিন্ডিকেট এই কাজ করছে। আমি শারীরিক ভাবে অসুস্থ। দুই-তিন দিনের মধ্যে সরেজমিনে গিয়ে খালটি দখলমুক্ত করার জন্য কাজ করবো। সবার সহযোগিতায় খালটি দখলমুক্ত করা হবে। 

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক দীপক কুমার রায় বলেন, রিকাবীবাজারের খালটি দখলমুক্ত করতে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কে ব্যবস্থা নিতে বলেছি। মিরকাদিম পৌরসভার সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে যারা খাল দখলের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

-এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft