For English Version
শুক্রবার, ১৪ মে, ২০২১, রেজি: নং- ০৬
Advance Search
হোম অনলাইন স্পেশাল

অর্ধশতাধিক স্পটে অবৈধ বালু উত্তোলনের মহোৎসব

Published : Sunday, 18 April, 2021 at 9:11 PM Count : 65
অনিল চন্দ্র রায়

কুড়িগ্রামেফুলবাড়ী উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নের প্রায় অর্ধশতাধিক স্পটে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের মহোৎসব চলছে। একাধিক বালু ব্যবসায়ী প্রকাশ্যে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ বালু উত্তোলন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। 

যেখানে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জেলা প্রশাসক ও ইউএনওদের চিঠিও দেওয়া হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে বালু উত্তোলনকারীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা না নেওয়ায় একাধিক সিন্ডিকেট প্রকাশ্যে দীর্ঘদিন ধরে অবাধে বালু উত্তোলন করছে। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলার শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের যোতিন্দ্র নারায়ণ এলাকার গুয়াবাড়ী ঘাটে নবনির্মিত সেতুর মাত্র দুই’শ গজ দূরে বারোমাসিয়া নদী থেকে প্রতিদিন শত শত ট্রাক বালু তোলা হচ্ছে। ফলে ঝুঁকির মুখে পড়েছে সেতুটি। আর অবৈধ ভাবে উত্তোলন করা এসব বালু পুকুর ভরাট, বসতবাড়ি উঁচুকরণসহ স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। 

এছাড়া, উপজেলার নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের গোরকমন্ডল, চর গোরকমন্ডল, কৃষ্ণানন্দ বকসি, পশ্চিম  ফুলমতি কলাবাগান, শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের চর শিমুলবাড়ী, সোনাইকাজী, ফুলবাড়ী সদর ইউনিয়নের কুটিচন্দ্রখানা, শাহবাজার,বিলুপ্ত বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার কালিরহাট, টনকার মোড়, কামালপুর, বড়ভিটা ইউনিয়নের ঘোগারকুটি,পুর্ব ধনিরাম, পশ্চিম ধনিরাম ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের বোয়ালভীড়, রামরামসেন, উত্তর রাবাইতাড়ী এবং কাশিপুর ইউনিয়নের কলেজমোড়, অনন্তপুর, মধ্য অনন্তপুর, অনন্তপুর বালাবাড়ী, ঘুঘুরহাট, বেড়াকুটি এলাকায় প্রায় অর্ধ শতাধিক অবৈধ ড্রেজার মেশিনে দিন রাত ভূ-গর্ভস্থ বালু উত্তোলন চলছে। আর অবৈধ ভাবে উত্তোলন করা এসব বালু দেদারছে বিক্রি করে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে যাচ্ছেন বালু ব্যবসায়ীরা।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এমদাদুল হক মিলন বলেন, ভূমিকম্পপ্রবণ রংপুর বিভাগের সীমান্তবর্তী এ উপজেলায় অধিক হারে ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলনের কারণে মাটির নিচে বালুর স্তর শুন্য হয়ে যাচ্ছে। ফলে ভবিষ্যতে বড় ধরনের ভূমিকম্প হলে বাসা বাড়ি, ব্রীজ, সেতুসহ সরকারি স্থাপনা মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে পড়ার সম্ভবনা রয়েছে। তাছাড়া ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলনের কারণে শুস্ক মৌসুমে নদী ভাঙণও বৃদ্ধি পেতে পারে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তৌহিদুর রহমান বলেন, বালু উত্তোলনকারীর বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছি। কয়েকটি স্থানে বালু উত্তোলন বন্ধ করাও হয়েছে। তাছাড়াও সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন তহশিলদার ও পুলিশকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। 

-এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft