For English Version
শনিবার, ০৮ মে, ২০২১, রেজি: নং- ০৬
Advance Search
হোম অনলাইন স্পেশাল

খোদ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সই মানছে না স্বাস্থ্যবিধি

Published : Sunday, 4 April, 2021 at 3:07 PM Count : 156
রফিক সরকার

গাজীপুরেকালীগঞ্জে বাড়ছে করোনা রোগী। হাট-বাজার, রাস্তা-ঘাট, দোকান-বন্দর ও স্থানীয় বাস স্ট্যান্ডে মানুষজন কোন ভাবেই মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি। তবে স্বাস্থ্যবিধি মানতে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ করছে উপজেলা ও থানা প্রশাসন। 

এতো কিছুর পরেও খোদ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সই মানছে না স্বাস্থ্যবিধি। বহিঃবিভাগে রোগীদের উপচে পড়া ভীর থাকলেও তাদের মাঝে নেই সামাজিক দূরত্ব। 

তবে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ বলছে, জনশক্তির অভাবে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহিঃবিভাগে সামাজিক দূরত্ব কার্যকর করা সম্ভব হচ্ছে না।

রোববার দুপুরে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, বহিঃবিভাগে পুরুষ ও মহিলা কাউন্টারে দু'জন লোক রোগীদের নাম, ঠিকানা, বয়স ও রোগ সম্পর্কিত তথ্য নিয়ে কম্পিউটারে এন্ট্রি দিয়ে রোগীদের টিকেট দিচ্ছে। এতে করে একজন রোগীর জন্য প্রায় ৪/৫ মিনিট সময় লেগে যাচ্ছে। যে কারণে অন্য রোগীদের ভীর চোখে পড়ার মতো। একজনের গা ঘেঁষে অন্যজন দাঁড়িয়ে আছেন চিকিৎসা সেবা নেওয়ার টিকেটের জন্য। অনেকের মুখে আবার মাস্কও নেই। অনেকে আবার সঙ্গে শিশু নিয়ে এসেছেন।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিসংখ্যান বিভাগ সূত্রে জানা যায়, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৪শ থেকে সাড়ে ৪শ রোগী হয়। এ পরিমাণ রোগীর জন্য স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহিঃবিভাগে পুরুষ, মহিলা ও শিশু কাউন্টার মিলিয়ে ৩টি কাউন্ডার রয়েছে। এর মধ্যে বর্তমানে শিশু কাউন্টারটি বন্ধ রয়েছে। টিকিট দেয়া হচ্ছে দুই কাউন্টার থেকে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. মিনহাজ উদ্দিন মিয়া বলেন, সর্বশেষ (০২ এপ্রিল) এ উপজেলা থেকে ২৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। এতে (০৩ এপ্রিল) ১৪ জন রোগীর শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। যা মোট নমুনা সংগ্রহের ৫০ শতাংশ। এর মধ্যে কালীগঞ্জ পৌরসভায় চার জন, নাগরী ইউনিয়নে তিন জন, তুমলিয়া ইউনিয়নে চার জন ও বাড়ীয়া ইউনিয়নে তিন জন রয়েছেন। এ পর্যন্ত এ উপজেলায় করোনায় ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। মোট চার হাজার ৮৬৮ নমুনা সংগ্রহ করে ৬৩১ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৫৩১ জন রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

সামাজিক দূরত্ব মানার ব্যাপারে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বলেন, এখানে ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির ৩৬ জন কর্মচারীর সংকট রয়েছে। যে কারণে রোগীদের সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে না। এ কাজ করতে জনবল দরকার। এছাড়াও ১৫ জন চিকিৎসকের পদ এখনও শূন্য। যদি তা পূরণ করা যেত তাহলে চিকিৎসা সেবা আরও দ্রুত দেয়ার পাশাপাশি সেবার মানও হত উন্নত। তবে শত সমস্যা থাকা স্বত্ত্বেও কোন রোগী চিকিৎসা সেবার জন্য হাসপাতালে এলেও তাকে বিনা চিকিৎসায় ফেরত দেওয়া হচ্ছে না।  

-এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft