For English Version
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১, রেজি: নং- ০৬
Advance Search
হোম বেড়িয়ে আসুন

সেন্ট মার্টিনে ভ্রমণ পিয়াসীদের উপচে পড়া ভিড়

Published : Tuesday, 2 March, 2021 at 3:22 PM Count : 129
সেন্টমার্টিন থেকে ফিরে সালাহ্উদ্দিন শুভ

বাংলাদেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনে দেশি-বিদেশি ভ্রমণপিয়াসী পর্যটকের ঢল নেমেছে। সরকারি ছুটির দিনে আনন্দ উদযাপন করতে বন্ধু-বান্ধব, বান্ধবী ও পরিবার পরিজনদের নিয়ে পর্যটকরা ছুটে আসছেন সেন্টমার্টিনে।

প্রতিদিন প্রায় ৭ থেকে ৮ হাজার পর্যটক দ্বীপের বিভিন্ন হোটেল মোটেল অবস্থান করছেন বলে জানা যায়।

রাত্রিকালীন সমুদ্রের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, ভোরের নির্মল হাওয়া উপভোগ, দ্বীপের নীল জলরাশি, শৈবাল, প্রবাল এবং জীবন্ত কোরাল দেখতে হাজার হাজার পর্যটক এখন সেন্টমার্টিনে অবস্থান করছেন। ইতিমধ্যে দেখা গেছে, দ্বীপের শতাধিক আবাসিক হোটেল এবং কটেজসমূহ পর্যটকে প্রাণচঞ্চল। ছুটি কাটাতে আসা ওসব পর্যটকরা আগ থেকেই হোটেলের কক্ষ বুকিং দিয়ে রেখেছেন।

হোটেল-মোটেল ব্যবসায়ীরা অবজারভারকে বলেন, করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে গত এক বছর ধরে সেন্ট মার্টিনে কোন পর্যটক ছিলো না বললেই চলে। কিন্তু এ বছরের শুরুতে আগে থেকেই ভ্রমণ পিপাসু পর্যটকরা সেন্ট মার্টিনের হোটেল এবং কটেজে বুকিং দিয়ে রেখেছেন। এমনকি হোটেল-কটেজ পরিপূর্ণ হলে আগত পর্যটকরা সৈকতের বালিয়াডিতেই রাত কাটাচ্ছেন।

ঢাকা থেকে ঘুরতে আসা পর্যটক হাসান আল-মামুন সোমবার অভিযোগ করে অবজারভারকে বলেন, 'এখন সাধারণ পর্যটকদের গলা কাটা বাকি আছে। যে হোটেলের ভাড়া দুই হাজার ছিলো, সেই হোটেলের ভাড়া ৪ থেকে ৫ হাজার নিচ্ছে। পরিবার-পরিজন নিয়ে এখানে এসে বিপাকে পড়েছি। এটা যেন মুগের মুল্লুক হয়ে গেছে।'

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে ঘুরতে আসা পর্যটক প্রিয়াংকা ও তার পরিবারের সদস্যরা অবজারভারকে বলেন, 'দীর্ঘ সময় জাহাজে এসে পৌঁছার পর এখানে খুবই ভাল লাগছে। আমরা এই প্রথম সেন্ট মার্টিনে এসেছি। এর আগে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত দেখেছি, কিন্তু এখানে আসা হয়নি।'

সাতক্ষীরার ব্যবসায়ী মো. আজহারুল ইসলাম অবজারভারকে বলেন, 'সেন্টমার্টিন দ্বীপে রাতযাপন করার শখ ছিল দীর্ঘদিনের। তাই পরিবার-পরিজন নিয়ে এখানে এসেছি।'

সেন্ট মার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী নুর মোহাম্মদ অবজারভারকে বলেন, 'সরকারি ছুটি থাকায়, বন্ধের দিনগুলো উদযাপন করতে ৭ হাজারেরও বেশি পর্যটক দ্বীপে এসেছেন। বছরের দিনগুলোকে স্মৃতিময় করতে এসব পর্যটক বৃহস্পতিবার এসে, শুক্রবার ও শনিবার পর্যন্ত প্রবাল দ্বীপে অবস্থান করেন। অনেক পর্যটক হোটেল-কটেজে জায়গা না পেয়ে ইতিমধ্যে তাঁবু ভাড়া নিয়েছেন। তারা নিকটজনদের নিয়ে সৈকতের বালিয়াডিতে রাত কাটাবেন বলে জানা যায়।’

টেকনাফস্থ ট্যুরিস্ট পুলিশ জানায়, 'পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তা দিতে প্রতিদিন পুলিশ কাজ করছে। বিশেষ দিন পর্যটকরা যেন উদযাপন করতে পারেন সে জন্য তিন স্তরের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত আছে।'

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম অবজারভারকে বলেন, 'সেন্ট মার্টিনে পর্যটকরা যাতে নির্বিঘ্নে অবস্থান করতে পারে সে জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। দ্বীপে অবস্থানকারী পর্যটকদের সুবিধার্থে প্রশাসনের বাড়তি নজরদারির পাশাপাশি সেখানকার জনপ্রতিনিধিদেরও সতর্ক থাকার নির্দেশনা দেওয়া আছে।'

অতিরিক্ত ভাড়ার বিষয়ে তিনি বলেন, 'সরেজমিনে ঘুুরে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।'

-এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft