For English Version
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১, রেজি: নং- ০৬
Advance Search
হোম সারাদেশ

গ্রামবাসীর সঙ্গে জাবি শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষ, আহত ২০

Published : Friday, 19 February, 2021 at 10:10 PM Count : 98
অবজারভার সংবাদদাতা

সাভারের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) সংলগ্ন গেরুয়াবাসীর সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। হামলাকারীরা চারটি মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর করে।

খবর পেয়ে রাত ৯টার দিকে আশুলিয়া থানা পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তবে এখনও দুই পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এলাকাবাসীর ধারণা সন্ত্রাসীরা আবারও যেকোন সময় হামলা চালাতে পারে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সাভারে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে বাক-বিতন্ডার ঘটনায় আয়োজক কমিটির অফিসে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে সন্ত্রাসীরা। এ সময় হামলাকারীরা প্রায় পার্শ্ববর্তী গেরুয়া বাজারের অর্ধশত দোকানপাটে ভাংচুর করে এবং কয়েকটি দোকানে তালা দিয়ে চাবি নিয়ে চলে যায়। ঘটনার পর থেকে বাজারের সকল দোকানপাট বন্ধ করে নিরাপদ দূরুত্বে রয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

তবে হামলাকারীরা একবার দোকানপাট বন্ধ করে চলে গেলেও পরবর্তীতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষার্থীকে নিয়ে গেরুয়া এলাকায় আসে। এ সময় বাতিঘর নামক ক্রিকেট সংগঠনের সদস্য মো. নজরুল ইসলামকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে এলাকাবাসীরা একজোট হয়ে তাদেরকে ব্যাড়িকেড দেয়। একপর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হন। হামলাকারীরা চারটি মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর করে।

আহতদের উদ্ধার করে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সন্ত্রাসী হামলার শিকার নজরুল ইসলাম বলেন, আমাদের গেরুয়া বাজার এলাকায় সম্প্রতি বাতিঘর নামক সংগঠন থেকে ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের আয়োজন করা হয়। সেই টুর্ণামেন্টের খেলায় একটি দলের পক্ষে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী খেলতে আসে। সে সময় ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে বাকবিতন্ডার ঘটনায় একদল সন্ত্রাসী লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র বাতিঘর অফিসে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট করে। পরে তারা দুটি বিকাশের দোকানসহ কয়েকটি দোকানে তালা ঝুলিয়ে চলে যায়।
 
তিনি আরও বলেন, শুক্রবার বিকেলে আমি বাসায় ছিলাম। হঠাৎ করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ কর্মী মুরাদ, এলেক্স, শুভসহ একদল সন্ত্রাসী দুই লাখ টাকা চাঁদা চেয়ে আমাকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যাচ্ছিলো। পরে মাইকিং করে এলাকাবাসীরা একত্রিত হয়ে তাদের কাছ থেকে আমাকে ছাড়িয়ে রাখে। এ ঘটনার জেরে সন্ধ্যার পর ওই সন্ত্রাসীদের নেতৃত্বে শতাধিক শিক্ষার্থী জড়ো হয়ে চাঁদা না দিলে এলাকায় ব্যবসা করতে দেবে না বলে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালায়। আতঙ্কে সবাই দোকান বন্ধ করে ফেলেন। এরপরও হামলাকারীরা চারটি মোটরসাইকেলসহ অর্ধশতাধিক দোকান ভাংচুর চালায়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় এলাকাবাসী অভিযুক্ত সন্ত্রাসীদের বিচার দাবি ও দোকান খুলে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।

এ বিষয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। বিষয়টি সমাধানের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিকে জানানো হয়েছে।

আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এছাড়া যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

-ওএফ/এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft