For English Version
বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
হোম সারাদেশ

কিশোর গ্যাংয়ের হামলা থেকে বাঁচতে নদীতে ঝাঁপ, দু'জনের লাশ উদ্ধার, গ্রেফতার ৬

Published : Tuesday, 11 August, 2020 at 11:27 AM Count : 156
অবজারভার সংবাদদাতা

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার ইস্পাহানী ঘাট এলাকায় কিশোর গ্যাংয়ের হামলা থেকে বাঁচতে শীতলক্ষ্যা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে প্রাণ হারিয়েছে দুই শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

নদীতে ঝাঁপ দিয়ে ৭ ঘন্টা নিখোঁজ থাকার পর সোমবার রাত সাড়ে ১১টায় দু'জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে৷

এর আগে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বন্দরের ইস্পাহানী ঘাট সংলগ্ন শীতলক্ষ্যা নদীতে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো, বন্দরের নাজিম উদ্দিন খানের ছেলে ও বন্দর প্রেস ক্লাবের সভাপতি কমল খানের ভাতিজা নিহাদ (১৮)। সে কদমরসুল কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির মানবিক বিভাগের ছাত্র ছিলো। অপরজন বন্দর প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজিম উদ্দিনের ছেলে ও বন্দরের বিএম ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র  জিসান (১৫)৷ 

গ্রেফতারকৃতরা হলো, মোক্তার হোসেন, কাসেম, আলবি, আনোয়ার হোসেন, শিপলু ও আহমেদ আলী।





পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বন্দরের ইস্পাহানী ঘাট সংলগ্ন এলাকায় দুই কিশোর গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে৷ এ সময় ঘাটের একটি নৌকায় ওঠে জিসান ও নিহাদ৷ কিশোর গ্রুপের একটি দল ওই নৌকাতে উঠলে ধাওয়া করে বিপক্ষ গ্রুপটিও নৌকাতে ওঠে৷ পরে নদীতে ঝাঁপ দেয় কিশোর দল৷ তাদের দেখাদেখি পানিতে ঝাঁপ দেয় নিহাদ ও জিসানও৷ অন্যরা সাঁতরে পাড়ে উঠলেও নিখোঁজ হয় নিহাদ ও জিসান৷ রাত সাড়ে ১১টার দিকে নদীতে তাদের লাশ পাওয়া যায়৷

এ ঘটনায় রাতে নিহত জিসানের বাবা বন্দর প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজিম উদ্দিন বাদি হয়ে ২০ জনকে আসামি করে বন্দর থানায় একটি মামলা দায়ের করে। রাতে ৬ জনকে পুলিশ গ্রেফতার করে।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুদ্দিন ভূইয়া জানান, বিকেলে একদল কিশোর অন্য দলকে ধাওয়া করে৷ সে সময় ওই দুই কিশোর ঘাটের একটি নৌকাতে দৌঁড়ে ওঠে৷ পরে সেখানেও এই কিশোর দল উঠলে ভয়ে তারা নদীতে ঝাঁপ দেয়৷ তখন তারা নিখোঁজ হয়৷ প্রাথমিক অবস্থায় এমনটা জানা গেছে৷ রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাদের লাশ পাওয়া যায়৷ এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। ইতিমধ্যে ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদেরকে মঙ্গলবার সকালে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

-এইচএমআর/এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959 & 01552319639; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft