For English Version
শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
হেফাজত আমির আল্লামা আহমদ শফী আর নেই। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।
হোম সারাদেশ

ধোপাদহ গ্রামে কান্নার রোল

সড়কে শেষ হয়ে গেল পর্বতারোহী রেশমার স্বপ্ন

Published : Saturday, 8 August, 2020 at 2:11 PM Count : 131

বীরপ্রতীক খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা বাবার কনিষ্ঠ সন্তান রেশমা নাহার রত্নাও ছিলেন সৃজনশীল মনের অধিকারী। দূর্গম পর্বত জয়ের নেশা পেয়ে বসেছিল তাঁকে। পবর্তারোহনের মতো কষ্টসাধ্য ক্রীড়ার চ্যালেঞ্জ ছাড়াও সামাজিক, অর্থনৈতিক নানা প্রতিবন্ধকতার সঙ্গে লড়েই তিনি এগিয়ে যাচ্ছিলেন। দৌঁড়, সাইক্লিংয়ের সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন রেশমা। পাশাপাশি তিনি ধানমন্ডি থানার আইয়ুব আলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। 

৩৩ বছর বয়সী রত্না দেশকে দিতে পারতেন অনেক কিছুই। কিন্তু তা আর হলো না। সড়ক দূর্ঘটনায় সব কিছু নিমিষে শেষ হয়ে গেল, সেই সাথে শেষ হয়ে গেলো রেশমার পর্বতারোহনের স্বপ্ন। 

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে প্রতিদিনের মতো রেশমা সংসদ ভবন এলাকার চন্দ্রিমা উদ্যানের লেক রোড ধরে গণভবনমুখী সড়কে দিয়ে যাচ্ছিলেন। চন্দ্রিমা উদ্যানে ঢোকার ব্রীজের সামনের সড়কে একটি মাইক্রোবাস তাঁকে চাপা দেয়। এতে তাঁর মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হয়ে সড়কে লুটিয়ে পড়ে। পথচারীরা উদ্ধার করে তাঁকে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।
 
নিহত রেশমা নাহার রত্না নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের ধোপাদহ গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা বীরবিক্রম আফজাল হোসেন শিকদারের কন্যা। সাত ভাই-বোনের মধ্যে রেশমা সবার ছোট। ঢাকার ইডেন মহিলা কলেজ থেকে পড়ালেখা শেষ করে তিনি শিক্ষকতা পেশাকে বেছে নেন। শিক্ষকতার পাশাপাশি রেশমা পর্বতারোহন, দৌড়, সাইক্লিং, গান, আবৃত্তিসহ নানা সৃজনশীল কাজের সাথে যুক্ত ছিলেন। এছাড়া তিনি বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের নিয়মিত সদস্য হিসেবে পাঠচক্রে অংশ নিতেন। 

রেশমার মৃত্যুর সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তার স্বজনসহ এলাকাবাসীর মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে। পরিবারের সদস্যদের সান্তনা দিতে উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শুভাকাঙ্খিরা ছুটে যান রেশমার ধোপাদহস্থ বাড়িতে। এ সময় স্বজনদের মধ্যে কান্নার রোল পড়ে যায়। রেশমার বাবা-মা ও ভাই-বোনরা শোকে মূহ্যমান হয়ে পড়েন। অবিবাহিত বোনের মর্মান্তিক মৃত্যুতে পাথর হয়ে গেছে রেশমার গোটা পরিবার।

ঢাকায় বসবাসরত রেশমার দুলাভাই মনিরুজ্জামান বলেন, রেশমা আগে তার বড় বোনের সঙ্গে পুরান ঢাকায় থাকতেন। পরে কর্মস্থল পরিবর্তন হলে তিনি মিরপুরে চলে যান। বেলা ১১টার দিকে খবর পেয়ে তারা হাসপাতালে ছুটে যান। 

মনিরুজ্জামান আরও বলেন, মাইক্রোবাসটির কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। দাফন শেষে তারা এ ঘটনায় মামলা করবেন। শেরে বাংলা নগর থানা পুলিশ রেশমা নাহার রত্নার বাইসাইকেলটি উদ্ধার করেছে। 

শেরে বাংলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন, দূর্ঘটনার ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করা হচ্ছে। সেটা দেখে গাড়ি শনাক্ত করা হবে।





নিহত রেশমার বড়ভাই ধোপাদহ গ্রামের সেলিম শিকদার জানান, শুক্রবার রাতেই রেশমার মরদেহ নিজ গ্রাম ধোপাদহে আনা হবে এবং শনিবার সকালে নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

রেশমার অকাল মৃত্যুতে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি লোহাগড়া উপজেলা শাখার সভাপতি মফিজুর রহমান ও সম্পাদক সালাউদ্দিন আরিফ, বাংলাদেশ সহকারী শিক্ষক সমাজ লোহাগড়া শাখার সভাপতি ইকতিয়ার রহমান গভীর শোক প্রকাশ ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের কেওকারাডংয়ে ওঠার মধ্য দিয়ে রেশমা নিজের পর্বত অভিযান শুরু করেন। তিনি ভারতের নেহেরু ইনস্টিটিউট অব মাউন্টেনিয়ারিংয়ে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। রেশমা গত বছর লাদাখের স্তোককাংরি পর্বত জয় করেন। এ ছাড়া তিনি আফ্রিকার কিলিমাঞ্জারো ও মাউন্ট কেনিয়া জয়ের জন্য গিয়েছিলেন।

ডিএসবি/এসআর


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959 & 01552319639; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft