For English Version
শনিবার, ১৫ আগস্ট, ২০২০
হোম সারাদেশ

ফেনীর মুহুরী-কহুয়া নদীর বেঁড়িবাধের ৮ স্থানে ভাঙ্গণ, ১০ গ্রাম প্লাবিত

Published : Monday, 13 July, 2020 at 8:51 AM Count : 124

কয়েক দিনের ভারী বর্ষণে ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে ফেনীর মুহুরী ও কহুয়া নদীর পানি বিপদসীমার ১৩২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে ফুলগাজী ও পরশুরাম উপজেলায় মুহুরী ও কহুয়া নদীর বেঁড়িবাধের ৮টি স্থান ভেঙ্গে ১০টি গ্রামের নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

রোববার বিকেলে মুহুরী ও কহুয়া নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ফুলগাজী উপজেলার সদর ইউনিয়নের কিসমত ঘনিয়ামোড়ায় একটি ও উত্তর দৌলতপুর এলাকায় ৩টি স্থানে ভেঙ্গে আশপাশের গ্রামে প্রবল বেগে পানি ঢুকতে থাকে।

অপরদিকে, পরশুরাম উপজেলার চিথলিয়া ইউনিয়নের দূর্গাপুর ও উত্তর শালধর দিয়ে একইভাবে পানি ঢুকতে থাকে।

এতে পার্শ্ববর্তী গ্রামসমূহের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হতে থাকে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে ভাঙ্গণ ও প্লাবিত গ্রামের সংখ্যা বাড়তে পারে।

ফুলগাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম জানান, উপজেলার সদর ইউনিয়নের কিসমত ঘনিয়ামোড়ায় একটি ও উত্তর দৌলতপুর এলাকায় ৩টি স্থানে মুহুরী নদীর বাঁধ ভেঙ্গে শাহাপাড়া, বৈরাগপুর, উত্তর দৌলতপুর, মধ্যম দৌলতপুর ও দক্ষিণ দৌলতপুর গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

অপরদিকে পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন আক্তার জানান, উপজেলার চিথলিয়া ইউনিয়নের দূর্গাপুর ও উত্তর শালধর দিয়ে মুহুরী নদীর বাঁধ ভেঙ্গে দুর্গাপুর, শালধর, মালিপাথর, রামপুর ও রতনপুর গ্রামের নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

পানির তোড়ে ভাঙ্গণ কবলিত গ্রামসমূহের কয়েকটি বসতঘর, পুকুরের মাছ ও বীজতলা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, প্রতি বছরেই বর্ষা মৌসুম আসলে অতি বর্ষণে ও ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে ওইসব স্থান দিয়ে নদীর বাঁধ ভেঙ্গে পানি ডুকে তাদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এতে ঘরবাড়ি, শত শত পুকুরের মাছ ও ফসল পানির তোড়ে ভেসে যায়।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, প্রতি বছর ভাঙ্গণ স্থান নামমাত্র মেরামত হলেও বাঁধের কোন স্থায়ী সমাধান হয়না। তাদের দাবি, নদী শাসনের মাধ্যমে সংস্কার করা হলেই নদী ভাঙ্গণ রোধ সম্ভব হবে। স্থানীয় জনগণ ভাঙ্গন কবলিত এলাকায় কোন সাহায্য নয়, বাঁধের স্থায়ী সমাধান চায়।





ফুলগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুন মজুমদার জানান, করোনার এই মহামারীর সময় আমাদের এলাকার জনগণ এমনিতেই সমস্যায় আছেন। তার উপর মুহুরী ও কহুয়া নদীর ভাঙ্গণ তাদেরকে চরম দূর্ভোগে পড়তে হবে। আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট এর স্থায়ী সমাধান চাই।

পানি উন্নায়ন বোর্ডের ফেনীর নির্বাহী প্রকোশলী মো. জহির উদ্দিন জানান, মুহুরী ও কহুয়া নদীর পানি বিপদসীমার ১৩২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি নেমে গেলে ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণ করা হবে।

বাঁধের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বাঁধ সংস্কার কাজে কোন গাফিলতি হয়নি।

-এমএটিভি/এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959 & 01552319639; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft