For English Version
রবিবার, ০৯ আগস্ট, ২০২০
হোম সারাদেশ

পাল্টাপাল্টি নতুন করে আরও ২ টি মামলায় আসামী ৩৫০

Published : Sunday, 12 July, 2020 at 9:13 PM Count : 35

সিরাজগঞ্জ আলোচিত নিহত ছাত্রনেতা এনামুল হক বিজয়ের স্মরণে আয়োজিত মিলাদ মাহফিলকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় সদর থানায় আরও ২টি মামলা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় নামীয় ও অজ্ঞাত মিলে ৩৫০জনকে আসামী করা হয়েছে।

এ নিয়ে ওই সংঘর্ষের ঘটনায় মামলার সংখ্যা দাড়ালো ৪ এ। এর আগেও জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারন সম্পাদক পাল্টাপাল্টি ২টি মামলায় দায়ের করেছেন। যেখানে নামীয় ও অজ্ঞাত মিলে ২৮০জনকে আসামী করা হয়েছে।

এদিকে এই সংর্ঘষের কারনে দলের মধ্যে বিভক্তি দেখা দেয়ায় আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির হস্তক্ষেপ বুধবার থেকে জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয় বন্ধ এবং আওয়ামীলীগের সকল অঙ্গ-সহযাগী সংগঠনের দলীয় কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে।  

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান জানান, শনিবার জেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক একরামুল হকের স্ত্রী মুক্তা খাতুন বাদী হয় তার স্বামীকে মারপিটের অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৭৫ জনের নাম উল্লেখ সহ ১০০/১৫০জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। এ নিয়ে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপর মধ্য সংর্ঘষের ঘটনায় মামলার সংখ্যা দাঁড়ালা ৪ এ।

এর আগে সংঘর্ষে আহত পৌর এলাকার গয়লা মহল্লার  আহম্মদ শেখরের পক্ষ থেকে সিরাজগঞ্জ সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি রাশেদ খান ৯ জুলাই বাদী হয় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৮১জনের নাম উল্লেখ সহ ৩০/৪০জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে।
এছাড়াও ঘটনার পরই জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আহসান হাবিব খাকা এবং সাধারন সম্পাদক আব্দুল্লাহ বিন আহম্মদ বাদী হয়ে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন। মামলা দুটিতে নামীয় ও অজ্ঞাত মিল ২৮০জনক আসামী করা হয়েছে।

পুলিশ জানায় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক বাদী হয়ে দায়ের করা মামলা দুটির তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম মোস্তফা। এছাড়া মুক্তা খাতুন ও রাশেদ খানের দায়ের করা মামলা দুটির তদন্তের দায়িত্বে রয়েছেন থানার পরিদর্শক (অপারেশন) নুরুল ইসলাম। শনিবার পর্যন্ত এই মামলাগুলোর ২৫ জন অভিযুক্ত আসামিকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

জেলা যুব লীগের সদস্য মুক্তা খাতুনের দায়ের করা মামলার উল্লেখযোগ্য অভিযুক্তরা হচ্ছেন, জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ ইউসুফ জুয়েল, জেলা স্বেছাসবক লীগের সাধারন সম্পাদক জিহাদ আল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল্লাহ বিন আহম্মদ, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আসাদুজ্জামান সোহেল, সাবেক সাধারন সম্পাদক জাকির হোসেন, সাবেক সাধারন সম্পাদক জাকিরুল ইসলাম লিমন, সদর উপজেলা মৎস্যজীবিলীগের আহবায়ক মোয়াজ্জেম হোসেন মন্ডল,  হাজী মজনু, সয়দাবাদ ইউপি সদস্য আব্দুল মোমিন, পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক কোষাধ্যক্ষ শাহাদত হোসন, যুবলীগ নেতা ফরিদ আহম্মেদ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক পীর সুমন প্রমুখ।

অপরদিক, সিরাজগঞ্জ সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি রাশেদ খানের দায়ের করা মামলার উল্লেখ যোগ্য অভিযুক্তরা হলেন পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র হেলাল উদ্দিন, তার ভাই সদর থানা আওয়ামীলীগর সদস্য বেলাল হোসন, সংঘর্ষে আহত জেলা যুবলীগর সাধারন সম্পাদক একরামুল হক, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আহসান হাবিব খোকা, সদর উপজলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিম রেজা নুর দিপু, শহর যুবলীগের আহবায়ক এমদাদুল হক এমদাদ, ট্রাক মালিক গ্রুপের সভাপতি টি এম রিজভী, সাংগঠনিক সম্পাদক সোহাগ, জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক  জামিউর রহমান উল্লাস শহর ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল মতিন প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, ৭জুন নিহত ছাত্রনতা এনামুল হক বিজয়ের রুহের মাগফেরাত কামনায় অনুষ্ঠিত মিলাদ মাহফিলকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্য সংঘর্ষ হয়। এত উভয়পক্ষের অন্তত ৫০ জন নেতাকর্মী আহত হয়। টানা দুই ঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষ চলাকালে ছাত্রলীগের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের অন্যান্য অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা ও জড়িয়ে পড়েন।

এর আগে ২৬ জুন জাতীয় নেতা প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিমের স্মরণে ছাত্রলীগ আয়োজিত দোয়া মাহফিলে যোগ দিতে যাওয়ার পথে শহরের বাজার ষ্টেশন এলাকায় এনামুল হক বিজয়কে মাথায় কুপিয়ে জখম করে প্রতিপক্ষ। ৯ দিন লাইভ সাপার্টে থাকার পর ৫ জুলাই সকালে তার মত্যু হয়। এ ঘটনায় তার বড় ভাই রুবেল বাদী হয় ২৭ জুন জেলা ছাত্রলীগের ২ সাংগঠনিক সম্পাদকসহ সংগঠনের ৫ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় বর্তমানে ৩ জন আটক, ১ জন জামিন এবং প্রধান আসামী পলাতক রয়েছেন।

ঘটনার পর ২৮ জুন মামলার আসামী জেলা ছাত্রলীগের ২ সাংগঠনিক সম্পাদক আল-আমিন ও শিহাব আহমদ জিহাদকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। নিহত এনামুল জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ও কামারখদ সরকারী হাজী কোরপ আলী ডিগ্রি কলেজ শাখার সভাপতি ছিলেন।





এবি/এসআর


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959 & 01552319639; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft