For English Version
বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
হোম খেলাধুলা

নিম্বাসের কাছে থেকে পাওনা

২ কোটি ২০ লাখ টাকা আদায়ে হাল ছেড়ে দিচ্ছে বিসিবি

Published : Saturday, 13 June, 2020 at 3:08 PM Count : 104

নিম্বাস স্পোর্টস লিমিটেডের কাছ থেকে পাওনা ২২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ২ কোটি বিশ লাখ টাকা আদায় করতে আরও একবার আইনি লড়াইয়ের পথে যাওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সম্প্রতি নিম্বাস দেউলিয়া ঘোষিত হয়েছে। ফলে আপাতত অর্থ পুনরুদ্ধারের কোনো সম্ভাবনা দেখছে না বিসিবি।

২০০৬ সালের নভেম্বরে ভারতীয় ক্রীড়া সম্প্রচার প্রতিষ্ঠান 'নিম্বাস স্পোর্টস'র সঙ্গে ৫৬.৮৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের চুক্তি সম্পন্ন করে উৎসবের রঙ ছড়িয়েছিল বিসিবি।  বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খেলা সম্প্রচার স্বত্ব ছয় বছরের জন্য বিক্রি করে ধনী হয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক (বর্তমানে সিনিয়র সহ-সভাপতি) মাহাবুবুল আনাম ও বোর্ডের সাবেক কর্মকর্তারা। 

কিন্তু চার বছর পর জানা যায়, নিম্বাসের সঙ্গে চুক্তিটি যথাযথ প্রক্রিয়ায় হয়নি। বরং ভুলে ভরা চুক্তি থেকে ইচ্ছে মতো সুবিধা আদায় করে নিয়েছে নিম্বাস স্পোর্টস। বিষয়টা জেনেও সেসময় তেমন কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এমনকি চুক্তিতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ব্যাংক গ্যারান্টিও নেওয়া হয়নি। 

২০১২ সালে চুক্তি শেষ হলেও বিবদমান অবস্থার শেষ হয়নি। নিম্বাস দাবি করে, তাদের নির্ধারিত শিডিউলের আগেই ত্রিদেশীয় এবং ইংল্যান্ড সিরিজ আয়োজন করে চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করেছে বিসিবি।  চুক্তি শেষে নিম্বাসের কাছে ৩২ মিলিয়ন ডলার পাওনার দাবি করে বিসিবি, যা ছাড় দিয়ে দাঁড়ায় ২২ মিলিয়ন ডলারে।

২০১২ সালের জুলাইয়ে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর ১ কোটি ১ লাখ টাকা দিয়ে ব্যাপারটা মিটিয়ে নেওয়ার প্রস্তাব দেয় নিম্বাস। কিন্তু তাদের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়ে সিঙ্গাপুরে নিম্বাসের বিরুদ্ধে আইনি লড়াই শুরু করে বিসিবি। কিন্তু কোর্ট অব সিঙ্গাপুর গত ২২ মে বিসিবিকে জানিয়ে দেয়, নিম্বাস দেউলিয়া প্রতিষ্ঠান। 

এখন কোনো আপত্তি বা কিছু বলার থাকলে বিসিবি'কে ২১ দিনের মধ্যে আরও একবার মামলা করতে হবে। মামলার জন্য বিসিবি'কে বাড়তি ২ লাখ মার্কিন ডলার খরচ করতে হবে। ক্রিকবাজ'র রিপোর্ট থেকে জানা গেছে, দ্বিতীয়বার মামলা করার ব্যাপারে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের কাছ থেকে পরামর্শ চেয়েছে বিসিবি। 





সিঙ্গাপুরভিত্তিক দুই আইনি পরামর্শ বিষয়ক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনা করেও বিসিবি বিষয়টা নিয়ে অন্যভাবে ভাবতে শুরু করে। যার ফলশ্রুতিতে গত ৬ জুন সিঙ্গাপুর কোর্টে 'নো অবজেকশন লেটার' (অনাপত্তিপত্র) পাঠায় বিসিবি।

বিসিবি'র প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী ক্রিকবাজকে বলেন, 'আমরা যদি অনাপত্তিপত্র না পাঠাতাম, তাহলে আমাদের আইনি লড়াই ছাড়াও অন্য ঝামেলা পোহাতে হতো। ফলে, আমাদের বাড়তি অর্থ খরচ করতে হতো। আমরা এতে জড়িত হইনি কারণ নিম্বাস পুরোপুরি দেউলিয়া হয়ে যাওয়ায় আমরা এর (আইনি লড়াইয়ের) কোনো উজ্জ্বল ভবিষ্যত দেখছি না।'

তিনি আরও বলেন, 'সিঙ্গাপুরে একটি আইনি লড়াই চলছে। ওরা যেহেতু দেউলিয়া হয়ে গেছে, তাই এটাও এখন বাড়তি বিষয় হয়ে গেছে। এ কারণেই আমরা এর পেছনে না ছোটাই ভালো মনে করছি। আর এই সিদ্ধান্ত আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করেই নেওয়া হয়েছে। তবে নিম্বাসকে ক্ষমা করার সুযোগ নেই। আইনি প্রক্রিয়া জারি থাকবে কিন্তু এটাও সত্য যে ওদের কাছ থেকে কিছু পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ।' 

সোনালীনিউজ/এএস


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60; Online: 9513959 & 01552319639; Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft