For English Version
সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০
হোম সারাদেশ

খুঁজে খুঁজে অসহায় ভ্যানচালক ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের খাদ্য সামগ্রী দিলেন ইউএনও

Published : Tuesday, 31 March, 2020 at 9:55 PM Count : 160

ক্ষুধার রাজ্যে পৃথিবী গদ্যময়।  আকাশের চাঁদ যেন মনে হয় ঝলসানো রুটি। সেই পেটের কারণেই বেশ কয়েকদিন নিম্নআয়ের অসহায় মানুষগুলো সরকারি নিষেধাজ্ঞা এবং করোনা ভাইরাসের ভয় সত্বেও সামান্য আয় করতেই রাস্তায় ছিলেন তারা। এই ধরনের শ্রেণী-পেশার মানুষকেই শহরে ঘুরে খুঁজে খুঁজে খাদ্য সামগ্রী দিলেন উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা।

যশোরের চৌগাছা উপজেলার পৌর শহরে ভ্যান-রিক্সা চালক ও নিম্ন আয়ের ব্যবসায়ীদের নিজে খুঁজে খুঁজে চাল-ডাল-আলু ও সাবান বিতরণ করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম। 





মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) বেলা ১১ টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত শহরের বিভিন্ন স্থানে এসিল্যান্ডের সরকারি পিকআপে করে খুঁজে খুঁজে প্রত্যেককে ১০ কেজি চাল, ২ কেজি গোলআলু, হাফ কেজি মসুর ডাল ও একটি করে লাইফবয় সাবান প্রদান করেন। খাদ্যদ্রব্য হাতে দিয়ে তাদেরকে আগামী কয়টা দিন শহরে না এসে বাড়িতে থাকার জন্য অনুরোধ করেন তিনি। প্রকৃতপক্ষে দিনআনা দিনখাওয়া এসব ব্যক্তিরা সামান্য রোজগারের আশায় শহরে এলেও তেমন কোন উপার্জন হচ্ছিল না। হঠাৎ করেই ইউএনওর কাছ থেকে এভাবে চাল ডাল পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন তারা। তাই তারা ফিরে যাওয়ার সময় আগামী কয়েকদিন সরকারি নির্দেশনা বাড়িতেই থাকবেন বলে গেছেন।

শহরের কামিল মাদরাসা মোড়ে (স্বর্ণপট্টি মোড়) ভ্রাম্যমান ভ্যানে শসা বিক্রি করেন পৌরসভার বিশ্বাস পাড়ার আব্দুল আলীম। তাকেও ইউএনও এমনই একটা প্যাকেট দিয়েছেন। আলীমের কাছে জানতে চাইলে বলেন ইউএনও সাহেব গাড়িতে করে এসে এটা আমাকে দিয়েছেন। আর বলেছেন যে শসাগুলো আছে ওগুলো বেচে বাড়িতে চলে যাবেন। আর এই ব্যাগটাতে খাবার আছে। এগুলো বাড়ি নিয়ে যাবেন। আগামী সাতটা দিন আর বাজারে না এসে বাড়িতে থাকবেন। এগুলো দিয়ে একয়দিন একটু কষ্ট করে চলবেন। আলীম আরো বলেন আমরা দিনআনা দিন খাওয়া মানুষ পেটের দায়েই বাজারে আসি। আগামী কটা দিনের তো ব্যবস্থা হয়েছে। এ কদিন বাড়িতেই থাকবো। আলীমের সামনেই রাস্তার অপর পাশে ফুটপথে ফল বিক্রি করেন তার পিতা আব্দুল আজিজ। তাকেও ইউএনও একটি খাদ্যদ্রব্যের প্যাকেট দিয়েছেন। তিনি প্যাকেট পেয়েই দোকান গুছিয়ে একটি ভ্যানে চড়ে বাড়ির পথে চলে গেলেন। একইভাবে খাদ্য দ্রব্য পেয়েছেন শহরের পোষ্টঅফিস মোড়ে কাঠালপাতা বিক্রি করা এক বৃদ্ধ। তিনি বলেন বাবা পেটের দায়েই তো এই বিপদের মধ্যেও বাজারে এসেছি। এবার কটা দিন বাড়িতেই থাকবো। এভাবে খুঁজে খুঁজে শহরের ৪০/৫০ ব্যক্তিকে খাদ্যদ্রব্য বিতরণ শেষে দুপুরের খাবার খেতে যান ইউএনও জাহিদুল ইসলাম। এসব খাদ্যদ্রব্য বিতরণকালে তার সাথে ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) নারায়ণ চন্দ্র পাল ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইশতিয়াক আহমেদ।

ইউএনও জাহিদুল ইসলাম বলেন আজ কিছু ভ্যান চালক ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের খাবার দেয়া হয়েছে। অন্যদেরও তালিকা করা হয়েছে। আমি নিজে সরকারি খাদ্য বিতরণ কাজ মনিটরিং করছি। কর্মহীন হয়ে পড়া এসব দিনমজুরদের সবাইকেই খাদ্য দেয়া হবে। আমাদের খাদ্যদ্রব্যের কোন সংকট নেই। কেউ না খেয়ে থাকবে না ইনশাআল্লাহ।

এইচআর/এইচএস


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft