For English Version
বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই, ২০২০
হোম রাজনীতি

ইশরাকের পক্ষে সমর্থন আদায়েই গোপিবাগে গুলি

Published : Friday, 31 January, 2020 at 2:00 PM Count : 185
আনোয়ার হোসাইন

রাজধানীর গোপীবাগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী ইশরাক হোসেনের প্রচারণায় আওয়ামী লীগ বিএনপির সংঘর্ষের সময় হেলমেট পরা গুলিবর্ষণকারী ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার নাম আরিফুল ইসলাম (৪৭)। জিজ্ঞাবাদে সে নিজেকে ছাত্রদলের সাবেক নেতা এবং বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেনের পিএস (একান্ত সচিব) বলে জানিয়েছেন।

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) আব্দুল বাতেন জানান, গত ২৬ জানুয়ারির ওই ঘটনাটি ছিল পরিকল্পিত। সেখানে বিএনপি প্রার্থীর প্রতি ভোটারদের সহমর্মিতা ও সমর্থন আদায় করতে দলটির এই কৌশল নিয়ে ছিল। কৌশলের অংশ হিসেবেই সুযোগ বুঝে গুলি চালানোর ঘটনাটি ঘটানো হয়। এতে সরকার দলীয় লোকজনের ঘাড়ে দোষ চাপানোও সহজ ছিল। ইশরাকের জনপ্রিয়তা বাড়াতে ভোটারদের সহমর্মিতা আদায়ের চেষ্টা করেছিল আরিফ।

ডিবি পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, ঘটনাটি ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিলে ডিবি পুলিশ ছায়া তদন্তে নামে। তদন্তের একপর্যায়ে গ্রেফতারকৃত পাঁচ আসামির দেয়া তথ্য এবং ঘটনাস্থলের আশপাশের বিভিন্ন বাড়ির সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে গুলি বর্ষণকারীকে শনাক্ত করা হয়।

এরপর বুধবার রাত সাড়ে বারোটার দিকে হাতিরঝিল থানাধীন মহানগর প্রজেক্ট এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে আরিফুল ইসলাম নামের ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় একটি অত্যাধুনিক বিদেশি পিস্তল ও ৫০ রাউন্ড তাজা বুলেট উদ্ধার করা হয়।  আটক ব্যক্তি জানায় তাঁর বাড়ি বরিশালে। তিনি ছাত্রদলের সাবেক নেতা। বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাকের পিএস।

জিজ্ঞাসাবাদে হিলমেট পরা ব্যক্তি আরিফুল নিজে গুলিবর্ষণের দায় স্বীকার করেছে। তা ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা একটি গুলির খোসা ও আরিফুলের ব্যবহৃত পিস্তরের খোসার সঙ্গে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে হুবহু মিল পাওয়া গেছে।





এদিকে আরিফুল ইসলাম তার সঙ্গে থাকা পিস্তলটি বৈধ বলে দাবি করেছে। এজন্য পিস্তলের বৈধ কাগজপত্র চাওয়া হয়েছে। কাগজপত্র হাতে পেলে অস্ত্রটি বৈধ না অবৈধ তা নিশ্চিত হওয়া যাবে। তবে অস্ত্রটি বৈধ হলেও আরিফুলের বিরুদ্ধে বৈধ অস্ত্রের অবৈধ ব্যবহারের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করা হচ্ছে।
 
অপরদিকে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন দাবি করেছেন, তার কোনো পিএস বা একান্ত সচিব সেই।  

আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, বিএনপি জনসমর্থন হারিয়ে পরাজয় নিশ্চিত জেনে এমন অস্ত্রধারীদের মাঠে নামিয়ে নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট করতে চেয়েছে।  তবে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী অসতর্কতায় তাদের সেই উদ্দেশ্যে সফল হয়নি। 

গত ২৬ জানুয়ারি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে বিএনপির প্রার্থী ইশরাক হোসেনের নির্বাচনী প্রচারের সময় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। টিকাটুলী মোড় থেকে ইশরাক হোসেন কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে মিছিল করে সেন্ট্রাল উইমেন্স কলেজের গলিতে ঢোকার সময় কলেজের মূল ফটকে সংঘর্ষের সূত্রপাত। এ সময় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে দুই পক্ষে একে অপরের দিকে ইটের টুকরা নিক্ষেপ করে। লাঠিসোঁটা দিয়ে হামলা করে। হামলার মধ্যে গুলি ছোড়ার শব্দ শোনা যায়।  ওইদিন ওয়ারী থানায় বিএনপির ৫০জন নেতাকে আসামি করা একটি মামলা করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ সমর্থিত একজন নেতা।

এইচএস


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft