For English Version
শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
হোম সারাদেশ

আমাদের রাজনীতি উন্নয়ন ও কাজের রাজনীতি : মঞ্জু

Published : Wednesday, 22 January, 2020 at 12:39 PM Count : 243
অবজারভার সংবাদদাতা

জাতীয় পার্টি (জেপি)’র চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি বলেছেন, 'মানুষের অবস্থার যদি পরিবর্তন না ঘটে তাহলে স্বাধীনতার প্রত্যাশা অর্থহীন হয়ে যাবে। আমাদের রাজনীতি কাজের রাজনীতি, এলাকার উন্নয়নই এ রাজনীতির মূল কথা। মানুষ সুখে থাকবে, শান্তিতে থাকবে- যতদিন বেঁচে থাকবো ততদিন এই রাজনৈতিক আকাঙ্খা, চিন্তা, কথা ও কাজে লালন করে যাবো।'

মঙ্গলবার বিকেলে পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলা সদরে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মঞ্জু বলেন, 'আওয়ামী লীগ বা জেপি যিনি যে দলই করুন না কেন সবার রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হওয়া উচিত স্বাধীনতার আকাঙ্খাকে বাস্তবায়ন করা। মানুষ যাতে সুখে, শান্তিতে, স্বস্তিতে থাকে এটা আমরা বরাবর প্রত্যাশা করেছি। এই উদ্দেশ্যকে পাথেয় করে মানুষের কল্যাণে গত ৩৬ বছর ধরে কাউখালী-ভাণ্ডারিয়াসহ অবহেলিত দক্ষিণাঞ্চলে আমরা নিজেদের নিয়োজিত রেখেছি।'

তিনি বলেন, 'আমরা সকলে মিলে বাংলাদেশকে স্বাধীনতার চেতনায় গড়ে তুলতে চাই। আর এই দেশ গঠনে ঐক্যবদ্ধ থাকলে অবশ্যই কাঙ্খিত ফল আমরা পাবোই। ঐক্য না থাকলে উন্নয়ন ঘটে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৮ সালে যখন গাবখান সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও নবনির্মিত পিরোজপুরের বলেশ্বর সেতুর উদ্বোধন করেন সে দিনই কঁচা নদীতে একটি সেতু নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছিলেন। বেকুটিয়ায় কঁচা নদীর ওপর যে সেতু নির্মাণাধীন তা প্রধানমন্ত্রীর সে দিনের ঘোষণারই বাস্তবায়ন।'

মঞ্জু বলেন, 'বঙ্গবন্ধু সেতুকে কেন্দ্র করে টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, বগুড়াসহ উত্তর বঙ্গের বিভিন্ন স্থানে যেভাবে সড়ক যোগাযোগ নেটওয়ার্ক গড়ে উঠেছে তেমনি বেকুটিয়া সেতুকে ঘিরে কাউখালী, ভাণ্ডারিয়া, স্বরূপকাঠি, রাজাপুর, পিরোজপুর সদর প্রভৃতি উপজেলায় নতুন নতুন সড়ক নির্মাণ করা হবে। মনে রাখতে হবে উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে ঐক্যের কোন বিকল্প নেই।'

তিনি বলেন, 'ঐক্যবদ্ধ রয়েছি বলেই আমরা আমাদের ন্যায্য পাওনা, হিস্যা তথা ন্যায় বিচার আদায় করতে সক্ষম হচ্ছি। যতদিন এলাকার মানুষ এক থাকবে ততদিন আমাদের ন্যায্য পাওনা থেকে কেউ বঞ্চিত করতে পারবে না।'

জেপি’র চেয়ারম্যান বলেন, 'বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এই অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র ব্যবস্থা আমরা অর্জন করেছি রক্তক্ষয়ী স্বাধীনতা যুদ্ধের মধ্য দিয়ে। যেকোন মূল্যে রাষ্ট্রের এই চরিত্র অটুট রাখা আমাদের সকলের কর্তব্য। গত ৩৬ বছর ভাণ্ডারিয়া-কাউখালী তথা এই এলাকায় আমরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ক্ষুন্ন হতে দেইনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারণে এ সম্প্রীতি কখনই বিনষ্ট হয়নি। বাংলাদেশে মানুষ জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সুখে-শান্তিতে একত্রে বাসবাস করছে।'

তিনি বলেন, 'আমাদের ভ্রাতৃপ্রতীম দেশ ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক অটুট। বাংলাদেশে ভারতের সাবেক হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা ভাণ্ডারিয়ায় এসে পৌর সুপেয় পানি সরবরাহ প্রকল্প উদ্বোধন করেছিলেন। সে সময় তিনি কাউখালীর শ্রী গুরু কেন্দ্রীয় আশ্রমের উন্নয়নের জন্য আর্থিক অনুদানের ব্যবস্থা করেছিলেন। আগামীতেও ভারতের সহায়তায় ভাণ্ডারিয়া ও কাউখালীর বিভিন্ন মন্দিরে অনুরূপ আর্থিক সহায়তা অব্যাহত থাকবে। আমাদের বন্ধু হর্ষবর্ধন শ্রিংলা এখন ভারত সরকারের পররাষ্ট্র সচিব হওয়ায় এই সম্ভাবনা আরও উজ্জল হয়েছে।'

অধ্যক্ষ পরিমল কর্মকারের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, আশ্রমের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রনঞ্জয় দত্ত, আশ্রমের সংগঠক উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুনীল কুন্ড ও সুব্রত রায়।

এরপর কাউখালী শ্রী শ্রী হরি গুরু চাঁদ মথুয়া আশ্রমে অপর একটি মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন আনোয়ার হোসেন মঞ্জু।





এখানে আশীষ কুমার মৃধার সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন, আশ্রমের সাধারণ সম্পাদক সুশীল চন্দ্র হাওলাদার ও কাউখালী ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুর রশীদ মিল্টন।

এখানে আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি আশ্রমের পাঁচতলা বিশিষ্ট ‘ভক্ত নিবাস’ ভবনের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। সন্ধ্যায় তিনি কাউখালী উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত ৫১০ জন কৃষকের মাঝে সার ও শস্য বীজ বিতরণ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কাউখালী উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সাঈদ মিয়া মনু, ইউএনও মোসা. খালেদা খাতুন রেখা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মৃদুল আহমেদ সুমন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নার্গিস আক্তার হাদিয়া, আওয়ামী লীগের উপজেলা যুগ্ম সম্পাদক মনিরুজ্জামান পল্টন, কাউখালী সদর চেয়ারম্যান আমিনুর রশীদ মিলটন, আমরাজুড়ি ইউপি চেয়ারম্যান শেখ শামসুদ্দোহা চাঁদ, সয়না-রঘুনাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান এলিজা সাঈদ, জেলা পরিষদ সদস্য শাহজাদী রেবেকা শহীন চৈতী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ আরী আজিম শরীফ প্রমূখ।

-আরএইচআর/এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft