For English Version
বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই, ২০২০
হোম অর্থ ও বাণিজ্য

মধু সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ব্যাহত হবার আশঙ্কা

Published : Monday, 30 December, 2019 at 8:29 PM Count : 74

সিরাজগঞ্জের জেলার বিভিন্ন উপজেলায় প্রতিবছরের মতো সরিষার ফুল থেকে মধু সংগ্রহ করছেন মৌচাষীরা। মধু সংগ্রহের জন্য মৌচাষীরা সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, যশোর, নাটোর ও সিরাজগঞ্জ সহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মধু সংগ্রহ করতে এসেছেন। তারা সরিষার ক্ষেত সংলগ্ন স্থানে অস্থায়ী মৌবক্স বসিয়ে মধু সংগ্রহ করছেন। 

ইতোমধ্যে জেলায় শতাধিক স্থানে প্রায় ২০ হাজার মৌবক্স বসিয়ে মধু সংগ্রহ করা হচ্ছে। মৌচাষীরা অস্থায়ী বাসস্থান স্থাপন করে মধু সংগ্রহের জন্য আবাসস্থল গড়ে তুলেছেন। মধু সংগ্রহ করার জন্য তারা ৭ থেকে ৮ সপ্তাহ সরিষার মাঠে অবস্থান করবেন। কিন্ত গত প্রায় দশ দিনের টানা বৈরী আবহাওয়ার কারণে মধু সংগ্রহে বিপাকে পড়েছেন খামারীরা। শৈতপ্রবাহ, তীব্র শীত এবং ঘন কুয়াশার জন্য প্রতিদিন হাজার হাজার মৌমাছি মারা যাচ্ছে। 

এছাড়া এমন অবস্থায় মৌমাছি বাক্স থেকে বেড় হতে পারছে না এবং মধুসংগ্রহ সম্ভব হচ্ছে না যার ফলশ্রুতিতে প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে মধু সংগ্রহের লক্ষমাত্রা পূরণ না হবার আশঙ্কা করছেন মৌচাষীরা।

তাড়াশ উপজেলার সগুনা ইউনিয়নে মৌবক্স বসিয়ে মধু সংগ্রহ করছেন সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার হরিনগর গ্রামের ইয়াছিন আলী। তিনি বলেন, প্রতি বছরেই তিনি মধু সংগ্রহ করে থাকেন। এবছর ২০০টি মৌবক্স বসিয়ে সরিষার ফুল থেকে মধু সংগ্রহ করছেন।
  
তীব্র শীতের কারণে প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে মৌবাক্স ছালা এবং গরম কাপড় দিয়ে বেঁধে রেখেছি। শীত জনিত কারণে মৌমাছি বাক্স থেকে বেড় হতে পারছে না এবং মধু সংগ্রহ সম্ভব হচ্ছে না। মৌমাছি মারা যাচ্ছে। সময় পার হয়ে যাচ্ছে কিন্ত মধু সংগ্রহ হচ্ছে না। এতে করে লোকসানে পড়তে হবে।

জেলা মৌচাষী সমিতির সভাপতি আব্দুর রশিদ জানান, জেলার বিভিন্ন উপজেলায় প্রায় ২০হাজার বক্স বসিয়ে মধু সংগ্রহ করছেন মৌচাষীরা। আশা করা হচ্ছে জেলায় প্রায় ২৫০টন মধু সংগ্রহ হবে। সিরাজগঞ্জ থেকে মধু সংগ্রহের বড় মৌসুম এখন। দেশের মধুর চাহিদা অনেকটা পূরণ হয় এখান থেকে। আমাদের নিকট থেকে প্রতি কেজি মধু ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা দরে ক্রয় করে এপি ও প্রাণ কোম্পানিসহ দেশের বড় বড় কোম্পানি। 





এছাড়া সাধারণ মানুষও প্রচুর মধু ক্রয় করে থাকেন। কিন্ত প্রায় দুই সপ্তাহের টানা শৈতপ্রবাহ, তীব্র শীত এবং ঘন কুয়াশার জন্য প্রতিদিন হাজার হাজার মৌমাছি মারা যাচ্ছে। মৌমাছি বাক্স থেকে বেড় হতে পারছে না এবং মধুসংগ্রহ সম্ভব হচ্ছে না এমন থাকলে মধু সংগ্রহের লক্ষমাত্রা পূরণ  হবে না। পাশাপশি খামারীরা লোকসানে পড়বেন।

জেলা কৃষিবিভাগ সুত্রে জানা যায়, এই মৌসুমে মধু সংগ্রহের প্রধান উপকরন সরিষার ফুল। জেলায় এবছর  ৫০হাজার ৫৭৫ হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদের লক্ষ মাত্রা ধরা হলেও আবাদ হয়েছে ৫৬হাজার ৯৮০ হেক্টর জমিতে। ফলনও হয়েছে ভাল। জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ১৯হাজার ৫৫১টি  মৌ বক্স বসিয়ে মধু সংগ্রহ করা হচ্ছে। সরিষার ফলন ভাল হওয়ায় মধুর উৎপাদনও বাড়বে যার কারণে গত বছরের চেয়ে ৪০টন বৃদ্ধি পেয়ে এবছর  ২৫০মেট্রিকটন মধু উৎপাদন হবে বলে আশা করছে জেলা কৃষি বিভাগ। তবে প্রতিকুল এবং বৈরী আবহওয়ার কারণে মধু সংগ্রহের লক্ষমাত্রা পূরণ ব্যহত হতে পারে বলে মনে করছেন কৃষি বিভাগ।
 
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. হাবিবুল হক জানান, জেলায় সরিষা উৎপাদন বাড়ছে সেই সাথে মধুর উৎপাদনও বাড়ছে। সিরাজগঞ্জ জেলায় মধু উৎপাদনের বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে কারণ হিসাবে তিনি বলেন, মধু সংগ্রহের জন্য সরিয়ার ফুলে যত মৌমাছি বসবে  ফুলে তত পরায়গমন হয় এবং সরিষার ফলনও বৃদ্ধি পায়। চলতি বছর জেলায় ১৯ হাজার ৫৫১টি মৌবক্স বসিয়ে সরিষার ফুল থেকে মধু সংগ্রহ করা হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, গতবছর জেলায় ২১০ টন মধু উৎপাদন হয়ে ছিলো এবছর  উৎপাদন বাড়বে এবং ২৫০ টন মধু উৎপাদন হবে বলে আশা করছি। তবে ঘন কুয়াশা এবং শীত জনিত কারণে মৌমাছি বাক্স থেকে বড়ে হয়ে মধু সংগ্রহ করতে পারছে না যার কারণে মধু উৎপাদনের লক্ষমাত্রা কিছুটা ব্যহত হতে পারে বলে মনে করছি।

এবি/এইচএস


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft