For English Version
শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৯
হোম শিক্ষা ও ক্যাম্পাস

বশেমুরবিপ্রবির নাম সংক্ষিপ্ত করায় শিক্ষার্থীকে পরীক্ষা থেকে বিরত থাকার নির্দেশ

Published : Sunday, 1 December, 2019 at 5:03 PM Count : 100

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) গণিত শিক্ষার্থী কবির আল গালিবকে মাস্টার্সের  চূড়ান্ত পরীক্ষা থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের দাবী নিয়ে ফেসবুকে স্টাটাস দেয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে এই শাস্তি মূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

রোববার (১ ডিসেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার প্রফেসর ড. মো. নূরউদ্দিন আহমেদ স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ নির্দেশ দেয়া হয়েছে (যার স্মারক নং- বশেমুরবিপ্রবি/র/জ.প্র/৪১/১২৬২(০৮), তাং-১ ডিসেম্বর ২০১৯)।

ওই অফিস আদেশে বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী কবির আল গালিবের (আইডি নং-২০১৩১২০৩০৭৩) দাবি নামা সম্বলিত স্টাটাসটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত শৃঙ্খলা বিধির ৫(ক) নং ধারা ভঙ্গ করার সামিল এবং বিষয়টি অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিধায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি-শৃঙ্খলা ও সুষ্ঠু পরিবশ বজায় রাখতে শৃঙ্খলা বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী তাকে চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকতে বলা হলো।  

উল্লেখ্য, সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের পদত্যাগের একদফা আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন কবির আল গালিব। ভিসি বিরোধী পদত্যাগ আন্দোলনের প্রতিটি কর্মসূচিতেই গালিব ছিলেন সম্মুখভাবে। গত ৩০ সেপ্টেম্বর শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে খোন্দকার নাসিরউদ্দিন পদত্যাগ করেন। এরপর ভারপ্রাপ্ত ভিসি হিসেবে দায়িত্ব পান প্রফেসর ড. মো. শাহজাহান। প্রফেসর ড. মো. শাহজাহান দায়িত্ব গ্রহনের পর শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন দাবী নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে স্মারকলিপি পেশ করেন। ওইসব দাবীর মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম সংক্ষিপ্ত করে ‘বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়’রাখার দাবী করা হয়। কিন্তু, বিষয়টি স্পর্শকাতর হওয়ায় এনিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অগ্রাহ্য করে। পরে কবির আল গালিব বিষয়টি নিয়ে ফেইসবুকে একটি স্টাটাস দেয়। বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে তাদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীরা তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি তোলেন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাকে বহিষ্কার না করে তার পরীক্ষা দেবার ব্যবস্থা করে। 

এনিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ ও উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। শিক্ষার্থীরা পুনরায় গালিবকে স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য ভারপ্রাপ্ত ভিসি প্রফেসর ড. মো. শাহজানের কাছে আবেদন করেন। 





এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন সম্পর্কে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন গত ১৪ নভেম্বর একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেয়। তাতে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম সংক্ষিপ্ত করা নিয়ে প্রশাসনের কাছে করা শিক্ষার্থীদের করা দাবীর সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন একমত নয়। এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম সঠিক রেখে কোন কিছু প্রচার ও প্রকাশ করার অনুরোধ জানানো হয়। 

এ বিষয়ে কবির আল গালিবের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

ভারপ্রাপ্ত ভিসি প্রফেসর ড. মো. শাহজাহান জানিয়েছেন, কবির আল গালিব একটি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন। কিন্তু, তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠায় তাকে সাময়িকভাবে পরীক্ষা থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। অভিযোগটি স্পর্শকাতর হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার প্রফেসর ড. মো. নূরউদ্দিন আহমেদকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এমএইচএম/এইচএস


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft