For English Version
শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯
হোম খেলাধুলা

ক্রিকেটারদের ব্যাপারে কঠোর হলেন পাপন

Published : Tuesday, 22 October, 2019 at 9:24 PM Count : 100
অবজারভার প্রতিবেদক

ক্রিকেট খেলা বাদ দিয়ে ধর্মঘটে গিয়েছেন সাকিব-তামিমরা।এনিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেট এখন বিশ্বক্রিকেটে আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে। ক্রিকেটারদের ১১ দফা দাবি স্পষ্ট করে মানার ঘোষণা না দিলে তারা যদি ধর্মঘট প্রত্যাহার করেন না এমন ঘোষণার পর ‘খেলোয়াড়রা না খেললে খেলবে না’ এমন নিজের কঠোর অবস্থানের কথা জানান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান। বরং বল ক্রিকেটারদের দিকে ঠেলে দিয়ে নিজেদের ‘দুয়ার’ খোলা রাখার কথা বললেন তিনি।

মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) সকাল থেকেই ক্রিকেটারদের ধর্মঘট নিয়ে সরগরম ছিল মিরপুরের বিসিবি কার্যালয়। দুপুরে বোর্ড পরিচালকদের নিয়ে অনির্ধারিত সভায় বসেন বোর্ড প্রধান। সভা থেকে বেরিয়ে সংবাদ সম্মেলন করলেও তার কাছ থেকে আসেনি কোনও স্পষ্ট ঘোষণা। বরং ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের পেছনে বাইরের কারো ইন্ধন থাকার কথা জানিয়ে নিজেদের কঠোর অবস্থান জানিয়ে দেন বিসিবি প্রধান।

উত্থাপিত দাবিগুলো না মানলে ক্রিকেটাররা কোনও ধরনের ক্রিকেটীয় কার্যক্রমে যোগ দেবেন না, যদি তা-ই ঘটে তাহলে বিসিবির অবস্থান কি? সামনেই তো গুরুত্বপূর্ণ ভারত সফর। উত্তরে বিসিবি বস নাজমুল হাসান বলেন, ‘খেলোয়াড়রা না খেললে খেলবে না! আমাদের কিছু করার নেই। ওরা ক্যাম্পে গেলে ভালো, না গেলে যাবে না। ক্রিকেটারদের ব্যবহার করা হচ্ছে। তারা নিজেরাও জানে না। দুই-একজন জানতে পারে। আমার দুয়ার ওদের জন্য খোলা। ওরা যদি আমার কাছে আসে, অবশ্যই কথা হবে। আমি তো কথা বলতেই চাই। আমি আশা করি, ক্যাম্প চলবে, ভারত সফর হবে।’-বিসিবি সভাপতি যোগ করে বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ওদের বাচ্চাদের কোলে নিয়ে হাঁটে’

তাহলে এই অচলাবস্থা নিরসনে বোর্ডের ভূমিকা কি? নাজমুল বলেন, ‘আমাদের দুয়ার তো খোলা আছে। তারা যে কোনও সময় আসলে আমরা বসতে পারি। তবে তাদের তো আমরা ফোনেই পাচ্ছি না। কেউ ফোন ধরে না, ফোন করা হলে কেটে দেয়।’ 

তিনি আরো বলেন, ‘আমার ধারণা, বেশিরভাগ ক্রিকেটারই ক্রিকেট ভালোবাসে, দেশকে ভালোবাসে। তবে দু-একজন ষড়যন্ত্রে থাকতে পারে।’
বোর্ড প্রধান ক্রিকেটারদের ধর্মঘটে যাওয়ার দিনক্ষণ নিয়েও প্রশ্ন তোলেন, ‘কখন তারা এটা করল? দুদিন পর ক্যাম্প শুরু হবে। বিদেশি কোচরা আসবে। দল ভারত সফরের মতো গুরুত্বপূর্ণ সফরে যাবে। যে ভারত সফরটা সচরাচর পাওয়া যায় না। অনেকের দাবি ছিল, ভারতে একটা পূর্ণাঙ্গ সফর করার, আমরা সেটা করলাম। এখন তারা ধর্মঘট করছে। যদি খেলা না হয় তাহলে কার লাভ হবে?’

বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়ার কথা জাতীয় লিগের তৃতীয় রাউন্ড। এই অচলাবস্থা সুরাহা না হলে জাতীয় লিগের কী হবে? নাজমুল সাফ বলে দিলেন, ‘না হলে হবে না, খেলা হবে না।’

একপর্যায়ে বিসিবি সভাপতি সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন, খেলোয়াড়দের নানা সুযোগ-সুবিধা তো দিচ্ছেনই, ব্যক্তিগত-পারিবারিক সমস্যারও তাঁরা সমাধান করেন। ইমরুল কায়েসের ছেলে অসুস্থতার উদাহরণ টেনে নাজমুল হাসান, কদিন আগে ইমরুলের ছেলে মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়ে। দেশে প্রত্যাশামতো চিকিৎসা হচ্ছিল না। তাকে নিয়ে যেতে হয়েছে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে। সেখানে কী ধরনের সহায়তা করেছেন, সেটিও সংবাদ সম্মেলনে জানান পাপন। তিনি বলেন,‘অনেকে ব্যক্তিগত সমস্যা আমার কাছে শেয়ার করে। আমি চেষ্টা করি তাদের সহায়তা করতে। (কদিন আগে) ইমরুলের বাচ্চা খুব অসুস্থ। অ্যাপোলো কিছু করতে পারছে না। সিঙ্গাপুরে নিতেই হবে। আমাকে বলল, আমার ভিসা নেই। কালকের মধ্যে ভিসা করে দিতে হবে। বললাম, টিকিট করে ফেল। এক দিনের মধ্যে (পরিবারের) সবার ভিসা করলাম। রাতে একটা অনুষ্ঠানের মধ্যে আবার ফোন করল। বলল, বাচ্চার এত খারাপ অবস্থা, ভিআইপি ব্যবহার করতে পারলে ভালো হয়। আমি ভিআইপি ব্যবস্থা করলাম।’

খেলোয়াড়দের বেতন বৃদ্ধি নিয়ে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আমরা যখন (পরিচালনা পর্ষদে) এসেছি ওদের বেতন ছিল দেড় লাখ টাকা। এটা বাড়িয়ে করলাম আড়াই লাখ টাকা। বেশি দিন আগের কথা না, শ্রীলঙ্কায় সিরিজ খেলে আসছে; মাশরাফি আর তামিম দুজন আমাকে লাউঞ্জে বলছে বেতনটা বাড়িয়ে দেন না। বললাম, কত আছে? বলল, আড়াই লাখ। ওরা বলল, আরেকটু বাড়ায়ে দেন। একজন বলল বেশি করে বাড়িয়ে দেন। আরেকজন বলল না ৫০ হাজার টাকা বাড়িয়ে দেন। সেটি হলে হয় তিন লাখ। ওখানে বসেই করলাম ৪ লাখ। বললাম, তোমাদের বেতন এখন থেকে ৪ লাখ টাকা। ওদের সঙ্গে এটাই আমাদের সম্পর্ক। কখনো ওরা বলতে পারবে আমাদের কাছে যেটা চেয়েছে, সেটা দিইনি!’

ক্রিকেটারদের বোসানের ব্যাপারে বিসিবি সভাপতি বলেন, এখন পর্যন্ত ক্রিকেটারদের দেয়া বোনাসের পরিমান অঙ্ক ২০ কোটি ছাড়িয়েছে, ‘২৪ কোটি টাকা ওদের বোনাস দিয়েছি। এই ১৫ খেলোয়াড়কে। শুধুই পারফরম্যান্সের জন্য। এটা কেউ দেয় নাকি? কী পরিমাণ সুযোগ-সুবিধা বাড়ানো হচ্ছে, এই টাকার জন্য খেলা বন্ধ করে দেবে, বিশ্বাস হয় না। কোনো দিন এ নিয়ে কিছু বলল না, জানলাম না। এদের সঙ্গে আমাদের নিয়মিত যোগাযোগ, কাউকে বলল না।’

সবশেষ বিশ্বকাপে ভালো খেলার পর সাকিব আল হাসান পর্যন্ত নাকি নাজমুলের কাছে বোনাস দাবি করেছেন, ‘সাকিবের সঙ্গে সবশেষ যখন দেখা তখনো সে বলেছে, আমি বিশ্বকাপে ভালো খেললাম আমার টাকা দিয়ে দেন! বললাম, ঠিক আছে আপার সঙ্গে কথা বলে অনুষ্ঠান করে দিই। তুমি ভালো খেলেছ।’

শুধু আর্থিক সুযোগ-সুবিধাই নয়, ক্রিকেটারদের পারিবারিক সমস্যা কীভাবে সমাধান করেন, সেটিও বিস্তারিত জানালেন নাজমুল, ‘কার ভাইকে এসপি-ডিসি মেরেছে, রাতে সেই এসপিকে ফোন দিয়ে ব্যবস্থা নিতে হয়েছে। এক খেলোয়াড়কে পুলিশ ধরে নিয়ে যাচ্ছে। বলছে, মেরে ফেলবে! বিদেশ থেকে এসব থামাতে হয়। কার মামার জমি দখল করে নিয়ে গেছে উত্তরায়, সেটি উদ্ধার করতে হয়েছে। মুশফিকের বাবা, মিরাজের খালা কোন গ্রামে কাকে মেরেছে, সেটার সমাধান আমাকে করতে হয় বিদেশ থেকে। এসব দাবিগুলো আমার কাছে ধাক্কা মনে হয়।’





এইচএস




« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft