For English Version
বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯
হোম রাজনীতি

যুবলীগের পদ পেতে ওয়ার্ডে জনপ্রিয়তার শীর্ষে যারা

Published : Friday, 18 October, 2019 at 5:24 PM Count : 1706


ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাভুক্ত নবগঠিত ৫১, ৫২, ৫৩ ও ৫৪ ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হওয়ার জন্য  ব্যাপকভাবে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছে পদ প্রত্যাশীরা তবে শেষ পর্যন্ত কে পাচ্ছেন কাঙ্খিতপদ তাই এখন দেখার বিষয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত শুদ্ধি অভিযানের কারণে উত্তরের অনেক বিতর্কিত যুবলীগ নেতা বর্তমানে অনেকটা নিরব ভূমিকা পালন করছে। অভিযোগ উঠেছে সাবেক নেতারা নিজ দলের ভেতরে কাঁদা ছোড়াছুঁড়ি করছেন।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, তুরাগের প্রত্যন্ত এলাকা বাউনিয়া, তাফালিয়া, চান্দুরা, মান্দুরাসহ কয়েকটি নিয়ে ৫২নম্বর ওয়ার্ড। এই ওয়ার্ডে দিনরাত প্রচার-প্রচারণা মিছিল মিটিং করে যাচ্ছেন এই ওয়ার্ডের যুবলীগ নেতারা।

ঢাকা উত্তর যুবলীগের সভাপতি মাইনূল হোসেন খান নিখিলের প্যানেল থেকে সরকারি তিতুমীর কলেজ শাখার একসময়ের তুখর ছাত্র রাজনীতি করা সোহেল মিয়া সভাপতি আর নগর সেক্রেটারি ইসমাইল হোসেনের প্যানেল থেকে শেখ শাহ আলম আহমেদ আকাশ সাধারণ সম্পাদক পদে জোরালো প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছে। এরই মধ্যে সভাপতি পদপ্রার্থী তরুণ যুবলীগ নেতা সোহেল মিয়ার তুরাগ জুড়েই জনপ্রিয়তা রয়েছে শোনা যাচ্ছে। নতুন হলেও গত সিটি নির্বাচনে এ ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর নির্বাচন করে অল্প ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েও যথেষ্ট সাড়া জাগাতে পেরেছেন সোহেল। দলীয় নেতারা সবদিক বিবেচনা করলে সভাপতি হিসেবে সোহেল মিয়াকেই আমলে নিবেন বলে অনেকের বিশ্বাস।

যুবলীগ নেতা সোহেল মিয়া বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে যুবলীগের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে কাজ করছি। আমার কাছে পদ নয় জনগণ গুরুত্বপূর্ণ। নগরের নেতারা যদি মনে করেন আমি যোগ্য, তাহলে অবশ্যই তারা আমাকে মূল্যায়ন করবেন। ৫২ নং ওয়ার্ড যুবলীগের আরেক সভাপতি পদ প্রত্যাশী হচ্ছেন স্বপ্ন পারভেজ। এই যুবলীগ নেতা এখনও তেমন পরিচিতি না পেলেও যুবলীগের যেকোনো সভা সম্মেলন কিংবা অনুষ্ঠানে তার উপস্থিতি থাকে বেশ। তবে অনেকে বলছেন, এখনো যেহেতু কমিটি ঘোষণা হয়নি তাই কে পাচ্ছেন এ ওয়ার্ডের দায়িত্ব তা দেখার বিষয়।

সভাপতি বাইরে বর্তমানে সাধারণ সম্পাদক পদে শাহ আলম আকাশ অনেকটা শক্তিশালী অবস্থান এ আছেন।

৫৩ নং ওয়ার্ডে সভাপতি পদ প্রত্যাশী তৈয়বুর রহমান। দলের নিবেদিত কর্মী হিসেবে তার সুখ্যাতি রয়েছে বেশ। এলাকার জনপ্রিয় মেম্বার কফিল উদ্দিনের ছেলে তিনি। পারিবারিক ভাবেই সম্মানের জায়গাটা যেন আগে থেকেই তার জন্য বরাদ্দ। তাছাড়া মানুষের বিপদে আপদে পাশে দাঁড়ানোর জন্য অল্প কিছু দিনের মধ্যেই বেপক সাড়া ফেলে এই যুবলীগ নেতা তৈয়বুর। এছাড়া নগরের নেতাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রয়েছে তার।

৫৩ নং ওয়ার্ডের এই  এই যুবলীগ নেতা তৈয়বুর অবজারভার প্রতিবেদককে বলেন, পদ পাওয়া না পাওয়া বড় বিষয় নয়। আমি আওয়ামী লীগ মতাদর্শের পরিবার থেকে এসেছি। আমার বাবা সারা জীবন এলাকায় মানুষের বিপদে আপদে পাশে ছিলেন। আমি তার দেখানো পথে সম্মান সাথে এগিয়ে যেতে চাই। যুবলীগের ৫৩নং ওয়ার্ড সভাপতি পদপ্রার্থী বিষয়ে তিনি বলেন, মুজিবীয় আদর্শ আমার ধ্যান-জ্ঞান। ৫৩ নং ওয়ার্ডের জনগণের আশা পূরণ করতেই সভাপতি পদ প্রার্থী হয়েছি। তবে পদ না পেলেও যুবলীগের প্রতি ভালোবাসা কমবে না। দেশ ও দশের জন্য নিবেদিত হয়ে সব সময় কাজ করে যাবো।

ইফতেখায়রুল ইসলাম জুয়েল ৫১ নং ওয়ার্ডের যুবলীগ থেকে সভাপতি পদপ্রার্থী হয়েছে। ছাত্রজীবন থেকেই ছাত্র রাজনীতিতে জড়িয়েছেন এই নেতা। মিষ্টি ভাষী সদা হাস্যোজ্জ্বল এই যুবনেতা যুবলীগের একনিষ্ঠ এক কর্মীও বটে। তার জনপ্রিয়তা নগরের নেতাদের কাছেও তুঙ্গে। তাছাড়া সামাজিক মর্যাদা, কর্মী যোগাযোগ ও আর্থিক দিক থেকে এ ওয়ার্ডের প্রার্থীদের মধ্যে সভাপতি পদে ইফতেখারুল ইসলাম জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক পদে নাজমুল হাসানের নাম প্রথমে।

সম্প্রতি ইফতেখারুল ইসলাম জুয়েল এর মা ইন্তেকাল করায় কিছুটা মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়েছেন তিনি। তার মায়ের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ঢাকা উত্তর যুবলীগের অধিকাংশ নেতারা।

জুয়েল প্রতিবেদককে বলেন, কখনো এমন কোন কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলাম না যে যুবলীগের বদনাম হবে। আর যুবলীগের বদনাম হয় এমন কোনো কাজে ভবিষ্যতেও সম্পৃক্ত হবো না ইনশাআল্লাহ। যুবলীগকে ভালোবাসী বলেই যুবলীগের নেতাদের দিক নির্দেশনায় জনগণের জন্য দলের জন্য সবার সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে কাজ করে চলেছি।

এই ওয়ার্ডে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আরেক প্রার্থী রয়েছেন নাজমুল হাসান। তার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাশিম, হরিরামপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ও বৃহত্তর উত্তরা আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। এলাকার আওয়ামী পরিবারের অনেকেরই রাজনৈতিক গুরু তার পিতা।
৫৪ নং ওয়ার্ড এর যুবলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী হয়েছেন আশরাফুল ইসলাম রুবেল। নিজ ওয়ার্ডে ছাত্র জীবন থেকেই সুখ্যাতি রয়েছে তার।





ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী যুবলীগের সহ-সম্পাদক ও হরিরামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবুল কালাম রিপন অবজারভার প্রতিবেদককে বলেন, এবারের কমিটি অনেক যাচাই-বাছাই করে অনুমোদন দেবেন নগর নেতৃবৃন্দ। এবারের ওয়ার্ড কমিটিতে সৎ যোগ্য ও শিক্ষিতদের মূল্যায়ন করা হবে। যারা যুবলীগের জন্য কাজ করেছে দলের শৃঙ্খলা রক্ষাসহ সবসময় এলাকাবাসীর পাশে ছিলেন তারাই এবারের কমিটিতে পদ পাবেন বলে আশা করা যায়।

এইচএস


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft