For English Version
সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
হোম সারাদেশ

আসমাকে ধর্ষণের পর হত্যায় এলাকায় ক্ষোভ, শুক্রবার মানববন্ধন

Published : Thursday, 22 August, 2019 at 2:02 PM Count : 90

রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে বলাকা কমিউটার ট্রেনের পরিত্যক্ত বগি থেকে উদ্ধার হওয়া মাদ্রাসা ছাত্রী আসমা আক্তারকে (১৭) ধর্ষণের পর হত্যা মামলার সন্দেহভাজন প্রধান আসামী পাশ্ববর্তী সীতাগ্রামের আবু হানিফ ওরফে ভুট্টোর ছেলে মারুফ হাসান বাঁধনকে (২০) চারদিনেও গ্রেপ্তার করতে না পারায় পরিবার ও এলাকায় ক্ষোভ বিরাজ করছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আসমার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, বাবা-মা সহ আত্বীয় স্বজনরা শোকে কাতর। এলাকার লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রাজনৈতিক প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় লুকিয়ে আছেন বাঁধন ও তার বাবা। এ ঘটনায় বাঁধন একা জড়িত নয়, আরও কেউ জড়িত থাকতে পারে। বাঁধনের বাবা ধনাঢ্য ও ব্যবসায়ী। আসমার পরিবার অতি দরিদ্র। এলাকাবাসী নিবিড় অনুসন্ধান আর তদন্তের মাধ্যমে সকল দোষীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

মারুফ হাসান বাঁধনের সঙ্গে তার প্রেমের সর্ম্পক ছিল। তাঁকে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে বাঁধনের মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

এদিকে, বুধবার সকাল থেকে বাঁধনের বাবাকেও এলাকায় দেখা যাচ্ছে না। বৃহস্পতিবার বাড়িতে গেলে বাঁধনের মা সেফালী বেগমকে পাওয়া যায়। তিনি বলেন, ‘স্বামী ব্যবসার কাজে বাইরে আছে। আমার ছেলে এ ঘটনায় জড়িত নয়। এলাকার কিছু মানুষ এই ঘটনা রটিয়েছে। ছেলেকে পেলে আমরাই পুলিশের হাতে তুলে দিব। বুধবার বাড়িতে পুলিশ এসে জিজ্ঞাসাবাদ করে চলে গেছে।’

অপরদিকে, আসমা হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিভিন্ন সংগঠন মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। ‘বাঁচাও পঞ্চগড়’ নামে একটি অরাজনৈতিক সংগঠন শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় পঞ্চগড় শহীদ মিনারের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

গত রবিবার সকালে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায় আসমা। পরিবারের দাবি, পাশ্ববর্তী সীতাগ্রামের আবু হানিফ ওরফে ভুট্টোর ছেলে মারুফ হাসান বাঁধনের সঙ্গে সে ঢাকায় পালিয়ে গেছে। আসমা ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় বাঁধনকে প্রধান আসামী করে তার চাচা মো. রাজু কমলাপুর জিআরপি থানায় মামলা করেছে। পঞ্চগড়ের শিংপাড়া এলাকার কনাপাড়া এলাকার দিনমজুর আব্দুর রাজ্জাকের দ্বিতীয় মেয়ে আসমা। সে স্থানীয় খাঁনবাহাদুর মখলেছুর রহমান মাদ্রাসা থেকে এবার দাখিল পাস করেছে। একই মাদ্রাসায় বাঁধন পড়তো। ৮ম শ্রেণি পাসের পর ছাড়পত্র নিয়ে নানার বাড়ির এলাকা থেকে এবার দাখিল পাস করে পঞ্চগড় বিএম টেনকিনক্যাল কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকে ভর্তি হয়েছে। অর্থাভাবে আসমাকে কোনো কলেজে বা মাদ্রাসায় ভর্তি করাতে পারেনি পরিবার।
 
পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুদর্শন কুমার রায় জানান, যেহেতু আসমার বাড়ি সদর উপজেলায় স্বাভাবিকভাবেই আমরা বিষয়টির খোঁজখবর রাখছি। র‌্যাব, পিবিআই ও জিআরপি পুলিশকে সহযোগিতা করছি। নতুন কোন তথ্য নেই। তবে প্রধান সন্দেহভাজন আসামীকে গ্রেপ্তার করতে পারলেই আসল ঘটনা জানা যাবে।

এসআইএস/এসআর


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft