For English Version
সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
হোম শিক্ষা ও ক্যাম্পাস

অনুমতি ছাড়াই বিদ্যালয়ের গাছ বিক্রির অভিযোগ

Published : Monday, 19 August, 2019 at 11:40 AM Count : 127

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার ময়দানদিঘি ইউনিয়নের জোতমনিরাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ৩০টি গাছ অনুমোদন ছাড়াই বিক্রি করেছে কর্তৃপক্ষ। এক যুগেরও বেশি পুরানো ওই গাছগুলো বিদ্যালয়ের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করে আসছিল। 

গাছগুলোর মূল্য কয়েক লক্ষ টাকা হলেও তা মাত্র এক লাখ টাকায় কিনে নিয়েছেন তমিজউদ্দিন নামের স্থানীয় এক কাঠ ব্যবসায়ী। রোববার দুপুরে ওই কাঠ ব্যবসায়ীর লোকজন গাছ কাটা শুরু করে। কাঁঠাল, বট ও ইউক্যালিপ্টাস প্রজাতির গাছগুলো বৃহৎ আকৃতির ছিলো। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয়রা জানান, এই গাছগুলো গ্রীষ্মকালে শিক্ষার্থীদের ছায়া দিত। বিদ্যালয়ের সৌন্দর্যও বৃদ্ধি করে আসছিল। কিন্তু কোন প্রকার কারণ ছাড়াই গাছগুলো বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। প্রধান শিক্ষক একটি প্রভাবশালী মহলের সহযোগিতা নিয়ে গাছগুলো বিক্রি করে টাকা আত্মসাতের চেষ্টা করছেন।

রোববার দুপুর ২টায় বিদ্যালয়টিতে গিয়ে দেখা যায়, একদিকে গাছ কাটা চলছে অন্যদিকে কাটা গাছ স্থানীয় পরিবহণে তুলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। 

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, বিদ্যালয়ের গাছ বিক্রি করতে হলে প্রথমে অনুমোদন লাগবে। বন বিভাগ কর্তৃক গাছের দাম নির্ধারণের পর নিলামের মাধ্যমে তা বিক্রি করতে হবে। গাছ বিক্রির টাকা সরকারি কোষাগারে জমা করতে হবে। ওই বিদ্যালয়ের গাছ বিক্রির প্রক্রিয়ায় এসব নিয়ম মানা হয়নি।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোবারক আলী জানান, ‘ময়দানদিঘি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বারের নির্দেশে গাছগুলো কাটা হয়েছে। গাছগুলোতে আশপাশের জমির ক্ষতি হচ্ছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছিল। তাই গাছগুলো কেটে ফেলার উদ্যোগ নেয়া হয়। তবে এ ব্যাপারে শিক্ষা বিভাগের বা প্রশাসনের অনুমতি নেয়া হয়নি।’ 

তিনি বলেন, ‘গাছগুলো ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়েছে।’

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কৃষ্ণ চন্দ্র রায় সরকারি বিধি না মেনে গাছগুলো বিক্রি করার কথা স্বীকার করে বলেন, ‘আমরা গাছগুলো কাটার আগে স্থানীয় চেয়ারম্যানের সঙ্গে পরামর্শ করেছি।’

এ ব্যাপারে ময়দানদিঘি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার জানান, ‘আমাকে স্কুল কর্তৃপক্ষ গাছ কাটার কথা জানিয়েছে। আমি তাদেরকে নিয়ম মেনে গাছ কাটার পরামর্শ দিয়েছি।’ 

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এ এম শাহাজাহান সিদ্দিক জানান, ‘উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে এক দিনের মধ্যে তদন্ত করে রিপোর্ট জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

বোদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ মাহমুদ হাসান জানান, ‘গাছগুলো জব্দ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে নির্দেশ দিয়েছি।’

-এসআইএস/এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft