For English Version
শুক্রবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৯
হোম অনলাইন স্পেশাল

শিশু হাসপাতালের ডেঙ্গু সারাবে কে?

Published : Monday, 22 July, 2019 at 4:00 PM Count : 120
রিয়াল উদ্দিন



যেখানে ডেঙ্গু আক্রান্ত শিশুদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে সেই ঢাকা শিশু হাসপাতালের সামনের ড্রেনই মশা প্রজননের জন্য যথেষ্ট বলে মনে করছেন চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের অভিভাবক-স্বজনরা।

সরেজমিনে হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায়, ঢাকা শিশু হাসপাতালের প্রধান গেটের সামনের ড্রেনটি সম্পূর্ণ খোলা। যা ময়লা আবর্জনায় পরিপূর্ণ।  ড্রেনে পানি জমে রয়েছে।  ড্রেন থেকে পঁচা গন্ধ বের হচ্ছে। হাসপাতালের ভেতরে মলের ড্রেনের ঢাকনাও খোলা। যা থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে।  হাসপাতালের চার পাশের ড্রেনেরও একই অবস্থা।

শিশুদের চিকিৎসা নিতে আসা অভিভাবকদের দাবি, হাসপাতালের চারপাশে যেসব ড্রেন রয়েছে সেগুলো নিয়মিত পরিষ্কার না করলে এখান থেকে আরও বেশি মশা জন্ম নেবে। যা চিকিৎসা নিতে আসা শিশুদের জন্য ভয়ংকর হতে পারে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ১৫০ জন শিশু হাসপাতালে চিকিৎসারত রয়েছে। প্রতিদিন প্রায় ৭ থেকে ৮ জন শিশু ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে।  

চিকিৎসকরা বলছেন, চিকিৎসা নিতে আসা শিশুদের মধ্যে কিছু উন্নতির দিকে কিছু শিশুর অবস্থা অবনতির দিকে যাচ্ছে।  ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে দ্রুত রক্ত পরীক্ষাসহ সব চেকআপ করে সঠিক চিকিৎসা নিলে সহজেই এ রোগ থেকে সেরে ওঠা সম্ভব। তবে দেরিতে চিকিৎসা নিতে এলে সহজে রোগ থেকে সেরে ওঠা সম্ভব হয় না। তখন দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসা নিতে হয়।

ঢাকা শিশু হাসপাতালের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. শিরিন আফরোজ বলেন, গর্ভবতী মা ও শিশুদের জন্য এই রোগ খুবই মারাত্মক। যা মৃত্যুর ঝুঁকিতে ফেলে দেয়।  তবে দ্রুত রোগ চিহ্নিত করে সঠিক চিকিৎসা নিয়ে অল্পতেই সুস্থ্য হয়ে যাওয়া সম্ভব।

এদিকে, আজ সকালে চিকিৎসাধীন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের শারীরিক অবস্থার সার্বিক খোঁজ খবর নিতে ঢাকা শিশু হাসপাতালে যান ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন।

তিনি বলেন, ৬৮টি মেডিকেল টিম পাড়া মহল্লায় কাজ করছে। তারা প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা দিচ্ছেন। যে সমস্ত পাড়া মহল্লাতে ডেঙ্গু রোগী পাওয়া যাচ্ছে তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তিসহ বিনামূল্যে ঔষধ সরবরাহ করছে। আমাদের ৫৭টি ওয়ার্ডে স্বাস্থ্য বিভাগের ইন্সপেকশন টিম যাচ্ছে। যেসব বাসায় এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে সেগুলো ধ্বংস করা হচ্ছে। ভবিষ্যতে যাতে এডিস মশার লার্ভা না জমে সে জন্য প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।  আমাদের টার্গেট রয়েছে, আগামী ১৫ দিনের মধ্যে ২৫ হাজার বাসা এডিস মশার লার্ভা মুক্ত করবো। আমাদের নাগরিকদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম ২৫ হাজারের বেশি রোগীকে প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা ও বিনামূল্যে ঔষধ সরবরাহ করা হয়েছে।

তবে মেয়রের হাসপাতাল পরির্দশনে খুশি নয় অভিভাবকরা। তারা বলছেন, এভাবে এসে পরিদর্শন করা ঠিক না। কাজের কাজ কিছুই নেই। যা করছে সব লোক দেখানো।

লাবনী আক্তার নামে এক অভিভাবক বলেন, অকার্যকর মশার ঔষধ দিলে মশা নিধন সম্ভব হয়। মেয়রেরা মশা নিধন বাদ দিয়ে জনগণকে দোষারোপ করছে।  কার্যকর মশার ঔষধ ছিটিয়ে মশা নিধন করা উচিত।

নির্মাণাধীন ভবনে এডিস মশার প্রজনন ক্ষেত্র পাওয়া গেলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ভবন মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাইদ খোকন।

অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে চলতি মাসের গত ২১ দিনে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৪ হাজার ৩৩৩ জন। গত এক জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত মোট ভর্তি হয়েছেন ৬ হাজার ৫৪৪ জন। যার মধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৪ হাজার ৯৮১ জন। বর্তমানে ভর্তি রয়েছেন ১ হাজার ৫৫৮ জন। এ পর্যন্ত এ রোগে মৃত্যু ঘটেছে ৫ জনের। হাসপাতালে একদিনে সবচেয়ে বেশি রোগী ভর্তি হয়েছেন গত ১৫ জুলাই ৩১১ জন। তবে ১০ জুলাই থেকে গড়ে প্রতিদিন প্রায় ২৫০ রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

-এমএ


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft