For English Version
সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
হোম সারাদেশ

বরগুনায় রিফাত হত্যা

কিলিং মিশনে ছিল নয়ন বন্ডের ০০৭ গ্রুপ

Published : Friday, 28 June, 2019 at 9:35 PM Count : 585

ম্যাসেঞ্জারে কিলিং মিশনের সদস্যদের কথোপকথন

ম্যাসেঞ্জারে কিলিং মিশনের সদস্যদের কথোপকথন

বরগুনার রিফাত হত্যার কিলিং মিশন পরিচালনা করেছে ০০৭ নামের একটি গ্রুপ। এই গ্রুপটির নামকরণ করা হয়েছিল জেমস বন্ডের ০০৭ নামের সাথে মিল রেখে। বন্ড গ্রুপের প্রধান নয়ন বন্ড এবং রিফাত ফরায়েজী সেকেন্ড ইন কমান্ডার হিসেবে গ্রুপটি পরিচালনা করে। এদের ফেসবুক ভিত্তিক একটি ম্যাসেঞ্জার গ্রুপে রিফাত শরীফকে হত্যার পরিকল্পনার নির্দেশনা দেয়া হয়। 

ম্যাসেঞ্জার গ্রুপে নির্দেশনার সংবলিত কয়েকটি স্ক্রিনশট প্রতিবেদকের হাতে পৌঁছেছে। এতে দেখা যায়, ঘাতক রিফাত ফরায়েজী আগের দিন রাত আটটার দিকে ম্যাসেঞ্জার গ্রুপে ০০৭ গ্রুপের সদস্যদের সরকারি কলেজের সামনে থাকার নির্দেশ দেয়। এসময় নামের প্রথমে মোহাম্মদ ও সাগর নামের একজন কোথায় থাকবে জানতে চায়। রিফাত তাদেরকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে সকাল নয়টায় থাকতে বলে। 

রিফাত গ্রুপে দায়ের ছবি দিয়ে বলে, পারলে এইটা নিয়া থাইকো। তখন মোহাম্মদ রিপ্লাইয়ে দাও নিয়ে থাকবো বলে জানান।

অনুসন্ধানে জানা যায়, নয়নের নেতৃত্বে দীর্ঘদিন ধরে ০০৭ নামে একটি গ্যাং গ্রুপ কলেজ রোড, ডিকেপি, দীঘির পাড়, কেজিস্কুল ও ধানসিঁড়ি সড়ক এলাকায় তাণ্ডব চালিয়ে আসছে। গ্রুপটির সদস্যরা ০০৭ কে সংকেত ব্যবহার করত। ঘাতক নয়নের মোটরসাইকেল বাড়ির দেয়ালে ০০৭ বন্ড লেখা থাকতো। এই গ্রুপ কেজিস্কুল, ক্রোক ও ধানসিঁড়ি এলাকায় বিভিন্ন সময়ে নানা অপরাধ কর্মকাণ্ডে সংগঠিত করে। বিশেষ করে পলিটকেনিক কলেজে অধ্যায়নরত ছাত্রদের ম্যাচে এরা নিয়মিত হানা দিয়ে মুঠোফোন কেড়ে নিয়ে টাকা পয়সা আদায়, ছিনতাই, ধানসিঁড়ি এলাকায় একসাথে ঘুরতে যাওয়া ছেলে মেয়েদের অপদস্ত করে টাকা আদায়সহ বেশ কয়েকজনকে মারধরে অভিযোগ পাওয়া যায়। 

এর মধ্যে ২০১৭ সালে রাকিব নামের এক কিশোরকে কুপিয়ে জখম, পরের বছর ক্রোক এলাকার ফারুক পিয়াদার ছেলে জীবনকে কুপিয়ে যখমসহ বেশ কিছু ঘটনার সাথে এই ০০৭ গ্যাংয়ের সম্পৃক্ততা ছিল। এসব কাজে নয়ন সরাসরি অংশ না নিলেও তাঁর নির্দেশনায় রিফাত ফরাজীর নেতৃত্বে গ্রুপটির সদস্যরা এসব কর্মকাণ্ডে সংগঠিত করত। আর গ্রুপের লিডার নয়ন বন্ড মূলত মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে। এছাড়াও মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের সঙ্গেও গ্রুপটির সম্পৃক্ততা ছিল। 

২০১৭ সালে প্রায় ১০ লাখ টাকার মাদক ও বিপুল পরিমান দেশীয় অস্ত্রসহ পুলিশের হাতে ধরা পরে।  জামিনে ছাড়া পাওয়ার ফের অপরাধে জড়িয়ে পড়ে নয়ন। তাঁর বিরুদ্ধে বরগুনা সদর থানায় ৮টি মামলা রয়েছে। 

ক্রোক এলাকার একজন বাসিন্দা জানান, গতবছর শেষের দিকে দীঘির পাড়ের একটি ম্যাচে হানা দিয়ে মোবাইল ও ল্যাপটপ ছিনতাই করে এ বাহিনী। পরবর্তীতে ভয়ে ১৫ জন ছাত্র ম্যাচ ত্যাগ করে চলে যায়। 

কেজিস্কুল এলাকার বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন বলেন, চুরি, ছিনতাই, লুটপাট সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডসহ এমন কোনো অপরাধ নেই যা এই ০০৭ সেভেন বাহিনী করেনি। 

ক্রোক স্লুইজ এলাকার বাসিন্দা আবুল কালাম আজাদ বলেন, গতবছর জমি সংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষ এই গ্রুপকে ১০ হাজার টাকা ভাড়ায় আনে। আমার উপর হামলা করে নয়নসহ অন্যরা আমার উপর হামলা করে।  আজো এর বিচার পাইনি। 

ওই এলাকার কাউন্সিলর শহীদুল ইসলাম নান্না বলেন, ছাত্রদের ম্যাচ থেকে মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনার বিচারের জন্য ডাকায় তার বাবা দুলাল ফরাজীর সামনেই আমার উপর হামলার চেষ্টা করে। আমি তখনকার পুলিশ সুপারসহ সব রাজনৈতিক নেতাদের দ্বারস্থ হয়েছিলাম, কিছুই হয়নি।  বরগুনা পলিটকেনিকের কয়েকজন ছাত্র জানান, ০০৭ বন্ড বাহীনির দাপটে তারা এলাকা ছাড়তে বাধ্য হয়।

বরগুনার পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন বলেন, আমরা আসামীদের ধরতে সর্বশক্তি নিয়োগ করেছি। পুলিশের সব কটি উইংসহ র‌্যাব এমনকি স্পেশাল গোয়েন্দা সংস্থাও এর সাথে সংযুক্ত রয়েছে। আশা করি খুব শিগরিগই আমরা সফল হবো। 

এখনো পর্যন্ত গ্রেফতার ৩
মামলার এজাহাভুক্ত দু’জনসহ মোট তিনজকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মামলার চার নম্বর আসামি শুভংকর শুভ চন্দনকে বৃহস্পতিবার সকালে এবং বিকেল নাগাদ ৯ নম্বর আসামি হাসান ও নাজমুলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এমএমএম/এইচএস


« PreviousNext »



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
Editor : Iqbal Sobhan Chowdhury
Published by the Editor on behalf of the Observer Ltd. from Globe Printers, 24/A, New Eskaton Road, Ramna, Dhaka.
Editorial, News and Commercial Offices : Aziz Bhaban (2nd floor), 93, Motijheel C/A, Dhaka-1000. Phone :9586651-58. Fax: 9586659-60, Advertisemnet: 9513663
E-mail: [email protected], [email protected], [email protected], [email protected],   [ABOUT US]     [CONTACT US]   [AD RATE]   Developed & Maintenance by i2soft